অন্তরের শূন্যতা আল্লাহর প্রতি ভালোবাসা দিয়ে পরিপূর্ণ করুন

glenn-carstens-peters-14-F8DTBKpU-unsplash
Fotoğraf: Glenn Carstens-Unsplash

আমাদের রবের সবচেয়ে মহিমান্বিত নাম হচ্ছে ‘আল্লাহ’। এটি আল্লাহর প্রাথমিক নাম; আর ‘আল্লাহ’ নামটি এসেছে ‘ইলাহ’ শব্দ থেকে; যার অর্থ প্রভুত্বের অধিকারী।

আর এ কারণেই সমগ্র কুরআন জুড়ে আল্লাহ আমাদেরকে এই মহিমান্বিত নামটি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। যাতে আমরা স্মরণ রাখতে পারি- তিনিই আমাদের একমাত্র স্রষ্টা, আমাদের পালনকর্তা এবং আমাদের ডাকে সাড়া প্রদানকারী। তিনিই আমাদের ইবাদত পাওয়ার একমাত্র অধিকারী।

আমরা যার সম্পর্কে কথা বলছি তিনি হলেন আমাদের রব-আল্লাহ। তিনি সকল সুন্দর নামের অধিকারী। কেননা তিনিই সকল সুন্দর গুণাবলীর অধিকারী।

আল্লাহ হলেন ‘আল ওয়াদুদ’, তিনি প্রেমময় ও প্রিয়জন। আপনার জীবনে আপনার বন্ধুবান্ধব, স্ত্রী, বাবা-মা এবং এই পৃথিবীর প্রত্যেকের কাছ থেকে আপনি যত ভালবাসাই লাভ করুন না কেন আপনার হৃদয়ে সর্বদা একটি শূন্যতা থাকবে, যা কেবলমাত্র আল্লাহর ভালবাসার দ্বারাই পরিপূর্ণ হতে পারে।

আর এই কথাটিই ইবনুল কাইয়্যিম(রহঃ) উল্লেখ করেছেনঃ

“প্রকৃতপক্ষে হৃদয় একটি শূন্যস্থান, যা কেবলমাত্র আল্লাহর ভালবাসার দ্বারাই পূর্ণ হতে পারে”

অনেক মানুষই আছে যারা এই বিষয়টি উপলব্ধি করতে পারে না। সুতরাং, শূন্য হৃদয়কে কেউ এই ক্ষণস্থায়ী দুনিয়ার আকাঙ্ক্ষার দ্বারা পূরণ করার চেষ্টা করে, তা ধনসম্পদের দ্বারাই হোক বা নারীর দ্বারাই হোক। তবে শেষপর্যন্ত তারা এটি উপলব্ধি করতে পারে যে, এগুলির দ্বারা আসলে শূন্যতা দূর হয় না বরং শূন্যতা আরও বৃদ্ধি পায়।

তারা এটিকে যে কোনও কিছুর দ্বারা পূরণ করার চেষ্টা করে তবে তা কখনও পরিপূর্ণ হবে না কারণ অন্তরের এই অংশটি কেবলমাত্র আল্লাহ তা’আলার জন্যই তৈরি হয়েছে।

আল্লাহর ভালোবাসা দিয়ে হৃদয়কে পূর্ণ করুন

ইবনুল কাইয়্যিম(রহঃ) এ প্রসঙ্গে একটি সুন্দর উদাহরণ দিয়েছেন, তিনি বলেছেনঃ

“মুমিনের হৃদয়ে আল্লাহর প্রতি ভালোবাসা একটি বৃক্ষের মত, যার শিকড় হল আল্লাহর প্রতি ভয়, যার কান্ড হল আল্লাহর জন্য নম্রতা, যার পাতা হল আল্লাহর পক্ষ থেকে শালীনতা এবং যার ফল হল আল্লাহর প্রতি আনুগত্যে পূর্ণ”

সুতরাং, আল্লাহর সাথে আমাদের সম্পর্ক তাঁর প্রতি ভালোবাসাকে কেন্দ্র করেই গরে ওঠে।

আর এ কারণেই ইবনুল কাইয়্যিম(রহঃ) তাঁর অপর এক বিখ্যাত উক্তিতে উদাহরণস্বরূপ বলেছেনঃ

“ইবাদতের মধ্য দিয়ে আল্লাহর দিকে আমাদের যাত্রা যেন একটি পাখির মত যার মাথা হল ভালোবাসা এবং দুই ডানা হল ভয় ও আশা”

মাথা ছাড়া কি কোনো পাখির অস্তিত্ত্ব থাকতে পারে? পাখিটি তো বাঁচতেই পারবে না, উড়া তো অনেক দূরের বিষয়। অনুরূপভাবে, আল্লাহর দিকে আমাদের যাত্রা কখনই সফল হবে না যদি না তাঁর প্রতি আমাদের ভালোবাসা পূর্ণমাত্রায় বিদ্যমান থাকে।

সর্বাধিক প্রেমময় এবং ভালোবাসা পাওয়ার অধিকারী

প্রেমময় আল্লাহ আমাদেরকে ভালোবাসেন এবং তিনি চান যেন আমরাও তাঁকে ভালোবাসি।

আল্লাহর ‘আর-রহমান’ নামের অর্থ অন্যের প্রতি তিনি দয়া প্রদর্শনকারী, তিনি কারও কাছ থেকে দয়ার প্রত্যাশী নন। আবার আল্লাহর ‘আল-গফুর’ নামের অর্থ হচ্ছে তিনি ক্ষমাকারী, অন্য কারও কাছে তিনি ক্ষমার প্রত্যাশী নন।

কিন্তু আল্লাহর ‘আল-ওয়াদুদ’ নামের অর্থ শুধুমাত্র তাঁর ভালোবাসা প্রদানের বিষয়টিই নির্দেশ করে না, বরং একইসাথে তিনি যে ভালোবাসা পাওয়ার অধিকার রাখেন সেই বিষয়টিও নির্দেশ করে।

আল্লাহ পবিত্র কুরআনে বলেছেন, পৃথিবীতে এমন কোনো গাছ নেই যা আল্লাহর প্রশংসা করে না, এমন কোনো পাখি নেই যা আল্লাহর প্রশংসা করে না, এমন কোনো সৃষ্টিই নেই যা আল্লাহর প্রশংসা করে না কিন্তু আমরা তা বোঝার সক্ষমতা রাখি না।

রাসূল সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লামের একটি হাদিসে বর্ণিত আছে, “আল্লাহর ভয়ে আকাশে কড়মড় শব্দ হয়। আসমানে এরকম চার আঙ্গুল পরিমাণ জায়গাও ফাঁকা নেই যেখানে কোনো না কোনো ফেরেশতা আল্লাহর প্রশংসায় মত্ত নেই এবং কিয়ামত অবধি এই অবস্থা জারি থাকবে”

এটাই হল সেই ভালোবাসা যা আলাহ নিজের জন্য সৃষ্টি করেছেন।

তাহলে এখন আমাদের প্রশ্ন হলঃ আল্লাহর প্রতি আমাদের ভালবাসা কোথায়?