আপনার সন্তানকে কীভাবে বইয়ের প্রতি আকৃষ্ট করবেন?

kids reading books
ID 6250556 © Distinctiveimages | Dreamstime.com

অধ্যয়ন আমাদের জ্ঞানের উত্স, বাইরের বিশ্বের জন্য আমাদের ‘দরজা’ স্বরূপ এবং বিভিন্ন বিষয়ে গবেষোয়ণার জন্য একটি উন্মুক্ত মাধ্যম।

কিন্তু দুঃখজনকভাবে হলেও সত্য, কিছু বছর যাবৎ আমাদের সন্তানদের পড়াশুনার স্থান দখল করে নিয়েছে ডিজিটাল প্রযুক্তি এবং আইপ্যাড, স্মার্টফোন ইত্যাদির মত নিত্যনতুন বিভিন্ন গ্যাজেট। এছাড়া তারা যদি পড়েও তাহলে সেগুলো হয়ত বাণিজ্যিক কিংবা মিডিয়া টাইপ বই।

এ কারণে বুক সেলফে অনেক বই পরে থাকে, কিন্তু সেগুলো আর কেউ পরে না। তাই আমদেরকে এমন কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে যাতে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম বই পড়ার প্রতি একটি আলাদা ভালোবাসা খুঁজে পায়।

একটি উদাহরণ স্থাপন করুন এবং পড়ুন

আমরা যেহেতু বাচ্চাদের পড়ার প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি করতে চাচ্ছি, তাই আমাদেরকেই এটি প্রথমে শুরু করতে হবে। কারণ ছোটরা সবসময় বড়দের অনুসরণ করতে পছন্দ করে।

আপনি তাদেরকে এটা বুঝান যে, অধ্যয়ন আসলে অনেক মজার একটা বিষয়, এখানে অনেক কিছু জানার আছে এবং এর মাধ্যমে অন্যের সাথে সংযোগ স্থাপন হবে ইত্যাদি ইত্যাদি।

বইয়ের প্রতি ভালবাসা খুব তাড়াতাড়িই শুরু হয় 

আপনার সন্তানের প্রাথমিক বয়স থেকেই তার সামনে পড়তে থাকুন যদিও তার বয়স তখন কয়েক মাসই হোক না কেন।

আপনার সন্তানের প্রথম খেলনা হিসাবে বোর্ড বই এবং কাপড়ের বই কিনুন। সংযোগের একটি মাধ্যম তৈরি করুন যেখানে আপনি এবং আপনার সন্তান উভয়ই আগ্রহ ও ভালবাসার সহিত পড়তে পারেন।

দুপুরের খাবারের সময় বাচ্চাদের কাছে বই পড়া তাদেরকে বিনোদনের মাধ্যমে বসিয়ে রাখতে সাহায্য করে এবং তারা বইয়ের সাথে বিনোদনের মাধ্যমে খাবারগুলো অনায়াসে খেয়ে ফেলে।

উচ্চস্বরে পড়ুন

আপনার সন্তানের কাছে উচ্চস্বরে পড়ুন, বইয়ের প্রতিটি অক্ষরকে আলাদা আলাদা কণ্ঠস্বর দিয়ে পড়লে শিশুটির সাথে কেবল বইয়ের বন্ধনই গড়ে উঠবে না বরং আপনি যে কণ্ঠস্বর ব্যবহার করছেন তা দ্বারা সে প্রতিটি অক্ষরকে আলাদা ভাবে চিনতে সক্ষম হবে।

বড় শিশুদের জন্য এটি আরও গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, সে তার নিজের দুর্বল পড়ার দক্ষতার দ্বারা নিরুৎসাহিত হতে পারে। নিজে নিজে কষ্ট করে পড়ার তুলনায় আপনিও তার সাথে পড়তে থাকলে সে শুধু উৎসাহই পাবে না বরং পড়ার মধ্যে মজাও খুঁজে পাবে।

পছন্দের দিকে খেয়াল রাখুন

এমন বিষয় খুঁজে বের করুন যা আপনার সন্তান পড়তে পছন্দ করে; তাদের পছন্দ এবং শখ থেকেই শুরু করুন এবং সর্বদা সতর্ক দৃষ্টিতে নজর রাখুন যে, আপনার সন্তানকে কোন জিনিসটি বেশি আকৃষ্ট করে যদিও তারা শুধু ছবির দিকেই তাকিয়ে থাকুক না কেন। তারপর ঐ পছন্দের বিষয়টি থেকে শুরু করুন, পছন্দের বিষয়গুলো জোরে জোরে পড়ুন অথবা ঐ বিষয়ের আরও তত্থ্য সংগ্রহ করে বাড়িতে আনুন।

পড়াকে মজাদার ভাবে উপস্থাপন করুন

পড়ার সাথে সম্পর্কিত গেমগুলি খেলুন, এটি কুইজ বা বিভিন্ন বর্ণের গেমস হতে পারে অথবা বর্ণের টাইলস বা ডাইস, বা বোর্ড গেমস হতে পারে যা খেলেতে হলে খেলোয়াড়দের ফাঁকা স্থান, কার্ড এবং দিকনির্দেশগুলি পড়ার জন্য প্রয়োজন।

পড়ার সক্রিয় দিক

পড়াকে এমনভাবে উপস্থাপন করুন যে এটি আমাদের সকল ক্ষেত্রেই প্রয়োজন – ঘুড়ি তৈরি করা, আপনার সন্তানের সংগ্রহে থাকা কোনো পুতুল বা ডাকটিকিট সনাক্তকরণ বা পারিবারিক ভ্রমণের পরিকল্পনা করার মতো দরকারী তথ্য সংগ্রহ করে এটি করতে পারেন। মূলত, বইকেই বর্তমান সময়ের “গুগল” বানেতে হবে যেটা একসময় ছিল।

পড়ার বাস্তবতা

শিশুদেরকে তাদের পড়ার অভিজ্ঞতার আলোকে গড়ে তুলতে হবে, সুতরাং কোনো শিশু যদি ডাইনোসর সম্পর্কে কোনো বই উপভোগ করে, তাহলে তাকে প্রাকৃতিক ইতিহাসের কোনো যাদুঘরে নিয়ে যাওয়া অথবা বইটির উপর কোনো চলচ্চিত্র প্রকাশিত হলে সিনেমা ট্রিপে নিয়ে যাওয়া তার জন্য একটি দুর্দান্ত পুরস্কার হতে পারে। এগুলো কোনোটি সম্ভবপর না হলে শিশুটি বইতে যা পড়েছে এমন একটি চিত্র অঙ্কন করে বিষয়টি তাকে উপস্থাপন করতে বলুন।

বইয়ের সন্ধান

শিশুরা ছোট থাকতেই তাদেরকে সাথে নিয়ে লাইব্রেরীতে ভ্রমণ করুন। সেখানে লম্বা সময় অবস্থান করে বাচ্চাকে সাথে নিয়ে বিভিন্ন বই পড়ুন এবং বিভিন্ন বিষয়ের উপর রচিত বই খুঁজে বের করুন। আপনার সন্তানকে একটি লাইব্রেরী কার্ড বানিয়ে দিন এবং লাইব্রেরীয়ানকে বলে রাখুন যে, শিশুরা যে বই বা মাগাজিন পছন্দ করে তা যেন তিনি তার শিশুকে সাজেস্ট করেন।

তালিকা

বই পড়া কখনই একটি টুকিটাকি কাজ বা সংগ্রাম নয়। সুতরাং, যেসকল বই এক বসাতে শেষ করা যাবে না সেসকল বইয়ে বুকমার্ক দিয়ে রাখুন; যা আপনার সন্তানকে স্মরণ করিয়ে দেবে যে, সে এক বসাতে বইটি শেষ করতে হবে না। এছাড়াও এটির মাধ্যমে সে অল্প কয়েকটি পৃষ্ঠা পড়ার বই রেখে দিলে, পরবর্তীতে যেখানে পড়া শেষ করেছিল সেখানে থেকে আবার শুরু করেতে পারবে। যে বইটি আপনার সন্তান পড়তে পছন্দ করেছে না সেটি পড়তে তাকে বারবার জোড় করবেন না। এমন হলে এই বাইটি পাশে রেখে দিন এবং অন্য একটি দিয়ে শুরু করুন। যে বইগুলি পড়া হয়ে গেছে সেগুলোর একটি তালিকা তৈরি করতে এবং প্রত্যেক বইয়ের জন্য আলাদা একটি রিভিউ লিখতে বাচ্চাকে উৎসাহিত করুন। এটি করলে শিশুর দৃষ্টিভঙ্গি উন্নত হবে এবং সে নিজের অর্জন দেখে একটু হলেও গর্ববোধ হবে।

সঞ্চিত সম্পদ

আপনার সন্তানের যেন একটি আলাদা বুক সেলফ থাকে যেটিতে সে তার নিজের বই এবং অন্যান্য জিনিস সংরক্ষিত রাখতে পারে সেটি নিশ্চিত করুন।

প্রাত্যাহিক কর্ম

স্কুলের পড়া থেকে ভিন্ন, স্বতন্ত্র কোনো পড়ার জন্য নিয়মিত সময় নির্ধারণ করে দিন – দিনে ১০ মিনিট স্বতন্ত্র কোনো বই পড়া আপনার সন্তানের দক্ষতা এবং অভ্যাসকে উন্নত করতে সহায়তা করতে পারে। আপনার বাচ্চাকে পড়ার প্রতি আগ্রহী করে তুলতে বিভিন্ন বিষয়ের জন্য তাকে বিভিন্ন পুরস্কার প্রদান করুন।

বই উপহার

জন্মদিনের মতো বিভিন্ন অনুষ্ঠানে উপহার হিসাবে শিশুদেরকে বই উপহার দিন এবং অন্যকেও বই উপহার দেওয়ার জন্য উত্সাহিত করুন।

বই শেয়ার করা

এমনকি আপনার সন্তান যদি স্বাধীনভাবে পড়তেও পারে তবুও তার সাথে বিকল্প কোনো পৃষ্ঠা পড়ার চেষ্টা করুন বা আরও ভালভাবে তার পঠিত পৃষ্ঠাগুলোই পড়ুন এবং এটি তার সাথে আলোচনা করুন।

বইয়ের ক্লাব

যখন কোনো শিশু একটি নির্দিষ্ট বয়সে উপনিত হয়, তখন তাকে বইয়ের ক্লাবে যোগ দিতে উত্সাহিত করুন বা তার অন্য বন্ধুদের সাথে একই বইটি পড়তে বলুন কারণ এটি সকলের পড়ার অভিজ্ঞতাকে সম্মিলিতভাবে সমৃদ্ধ করে তুলবে।