উহানে আটকে পড়া ভারতীয়রা ফিরছে আজ

জীবন Tamalika Basu ৩১-জানু.-২০২০

চিনের উহানে অবরুদ্ধ ভারতীয়দের দেশে ফেরাতে রওনা দিচ্ছে বিমান। শুক্রবার সন্ধ্যায় বিমানে করে দুর্দশাগ্রস্ত ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনা হবে। প্রথম উড়ানে উহান ও আশেপাশের অঞ্চলে বসবাসকারীদের নিয়ে আসা হবে। এরপর দ্বিতীয় উড়ানে চিনের হুবেই রাজ্যের অন্যান্য অঞ্চলে বসবাসকারী ভারতীয়দের ফেরত আনা হবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য– চিনে পড়াশোনা ও কাজের সূত্রে উল্লেখযোগ্য-সংখ্যক ভারতীয় রয়েছেন।

চিনে ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ১৭০ ছাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮০০০ ছুঁয়েছে। হুবেইর উহানে ১ কোটির বেশি মানুষ বসবাস করেন। গত এক সপ্তাহ থেকে শহরটি কার্যত অবরুদ্ধ। অধিকাংশ মানুষই ঘর থেকে বেরোতে ভয় পাচ্ছেন। ভারতীয়রা ভিডিয়ো কল করে তাদেরকে উদ্ধারের জন্য অনুরোধ জানিয়েছে দেশে। সেখানে বাংলার বেশ কয়েকজন রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

চিনে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে– উহান থেকে রওনা দেওয়ার জন্য ভারতীয়রা প্রস্তুত হচ্ছে। উহান ও তার আশেপাশের এলাকা থেকে ভারতীয়দের ফেরত আনা হবে। যারা দেশে ফেরত যেতে চান বলে দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন তাদেরই বিমানে করে দেশে নিয়ে আসা হবে বলে দূতাবাস জানিয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় ভারতগামী বিমান ছাড়ছে– এই খবর সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে হুবেতে বসবাসকারী ভারতীয়দের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে– যাতে কেই ফ্লাইট মিস না করে। দূতাবাস থেকে আরও জানানো হয়েছে যে– প্রয়োজনে ফ্লাইটের সময়সূচির পরিবর্তন হতে পারে। সব ধরনের পরিস্থিতির মোকাবিলার জন্য তাদের ‘যথেষ্ট প্রস্তুত’ থাকতে বলা হয়েছে। এর আগে একটি বার্তায় দূতাবাসের তরফ থেকে জানানো হয়েছে– যারা দেশে ফিরবেন তাদেরকে ১৪ দিন পৃথক করে চিকিৎসাধীন রাখা হবে। ফেরত-আসা ভারতীয়রা চিন থেকে তাদের শরীরে করোনা ভাইরাস বহন করে এনেছেন বা করোনা-আক্রান্ত কি না– সে বিষয়ে সুনিশ্চিত হতেই এই ১৪ দিনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা হবে। বেশ কয়েকদিন থেকেই এই ফেরত-প্রক্রিয়া নিয়ে দু’দেশের তরফে কথাবার্তা চলছিল। চিনের বিদেশমন্ত্রক সবুজ সংকেত দিলে ভারত পদক্ষেপ নিতে শুরু করে।