একজন মানুষ হিসেবে ভুল করার অধিকার সকলেরই আছে

মানুষ মাত্রই ভুল করে। এটা নিঃসন্দেহে বলা যায় যে ভুল মানুষের জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। মানুষ ভুল করে, কেউ আবার এই ভুল বারবার করে। কেউ আবার হয়তো জীবনে একটি ভুল একবারই করে থাকে। তবে এইরকম মানুষের সংখ্যা পৃথিবীতে হয়তো খুবই কম। কথায় আছে না ” ন্যাড়া বেলতলায় একবারই যায়।”

একজন মানুষ হিসেবে আপনি ভুল করতেই পারেন। ভুল করার অধিকার আপনার আমার আমাদের সকলেরই আছে। আমাদেরকে অর্থাৎ আপনাকে আমাকে পরম মমতায় যে রাব্বুল আলামিন সৃষ্টি করেছেন, সেই পবিত্র মহান আল্লাহ তাআলাই পবিত্র গ্রন্থ আল করে বলে দিয়েছেন যে, তিনি গোটা মানব প্রজন্মকে সৃষ্টি করেছেন দুর্বল করেই। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ বলেন, ” আর মানুষকে সৃষ্টিই করা হয়েছে দুর্বল করে। (সূরা নিসা-২৮)। ”

সুতরাং আমরা দেখতে পাচ্ছি মহান রাব্বুল আলামিন তিনি আমাদেরকে দুর্বল করে সৃষ্টি করেছেন। যেহেতু আমরা দুর্বল তাই আমাদের দ্বারা ভুল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। তাই আপনি আমি ভুল করবো, ভুলে যাব, বিস্মৃতি হব, একই ভুল একাধিক বার করব, এমনটা হতেই পারে। এমনকি এসব আমাদের জীবনে প্রতিদিনই ঘটতে পারে। প্রতিদিনই ঘটে যাওয়া এটা একটা স্বাভাবিক বিষয়।

তাহলে কি আমরা শুধু ভুলের ভেতরেই থাকবো? এই ব্যর্থতা কে নিয়েই থাকব?

না আমরা ভুলগুলো থেকে উত্তরণের যথাসাধ্য চেষ্টা করব এবং এটিই হবে আমাদের সফলতা। অর্থাৎ যখনই ভুল করব তখনই সে ভুল থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টা করব। এবং নিজেকে এমন ভাবে তৈরি করব যাতে ভবিষ্যতে এ ভুল আর না হয়। এবং এটা হচ্ছে সফলতা। বান্দা যখন কোন বিষয়ে ভুল করে এবং সে পরে সেখান থেকে বের হয়ে আসে আর আল্লাহর কাছে সেই বান্দা অনুতপ্ত হয়, ক্ষমা চায়, সেজন্য এই ভুল না করে এ জন্য বারবার আল্লাহর কাছে রহমত প্রার্থনা করে, তখন আল্লাহ তায়ালা খুব খুশি হন। আমার লক্ষ্য করলে দেখতে পাবো পবিত্র কোরআন শরীফে মহান আল্লাহতালা বারবার ক্ষমার কথা বলেছেন। বারবার বলছেন আমরা যদি তাকে ডাকি, তওবা করি, এবং সৎকর্ম করি তবে তিনি আমাদেরকে ক্ষমা করবেন এবং আমাদেরকে উত্তম প্রতিদান দান করবেন। ভুল হতেই পারে তবে তার থেকে বের হয়ে আসাটাই হচ্ছে অনেক বড় সাফল্য।

আপনার ভুলের জন্য কেউ যদি আপনাকে ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃত ভাবে যদি আঘাত দিয়ে থাকে তবে সেখানে আপনার মানসিকভাবে ভেঙে না পড়াটাই উত্তম। এটাকে স্বাভাবিক ভাবে নিন। কষ্ট না নিয়ে বরং চেষ্টা করুন এ ভুল থেকে যেন আপনি বের হয়ে আসতে পারেন এবং ভবিষ্যতে যেন এই ধরনের ভুল আপনার না হয়। আজকে আপনি যে অবস্থানে দাঁড়িয়ে আছেন তা আপনি একদিনে হননি। সারা জীবনের পরিশ্রম ত্যাগ, শুধু নিজের নয় অন্যের ত্যাগও রয়েছে আপনার জীবনের বর্তমান অবস্থার পেছনে। অন্যের ভালোবাসা, মমতা, দোয়া রয়েছে আপনার পেছনে। তাই আপনার ভুলের কারণে কেউ যদি আপনাকে কোনো কটু কথা বা নেতিবাচক কথা বলে, তাহলে এর কারণে আপনি হতাশ হবেন না। নিজের কাছে সৎ থাকবেন এবং পরবর্তীতে যাতে এই ভুল না করেন সেই ভাবে নিজেকে প্রস্তুত করবেন।

মহান রব্বুল আলামীন আমাদের অন্তরের প্রতিটি কথা তিনি খুব ভালোভাবেই জানেন। সুতরাং আপনার অন্তরের যদি কোনরকম নেতিবাচকতা না থাকে, মহান রাব্বুল আলামিন তাও জানবেন। আবার যদি ইতিবাচক কিছু থেকে থাকে তাও তিনি জানবেন। তাই অন্তরের সৌন্দর্য কে বৃদ্ধি করার চেষ্টা করুন। অন্যদের প্রতি আপনার ভালোবাসা, মমতা, শুভকামনা, দোয়া বৃদ্ধি করতে থাকুন। কেউ যদি নাও জানেন, নাও শুনতে পান তাতে আপনার কিছুই যায় আসে না। কারণ আল্লাহ আপনার অন্তরের সব খবরই রাখেন।

মহান রাব্বুল আলামিনের সৃষ্টি এই পৃথিবী অনন্য সুন্দর। এই সুন্দর পৃথিবীতে আপনি আমি যে কেউই ভুল করতে পারি। তাই ভুল করে ফেললে হতাশ হবেন না। সাহস এবং ভুল থেকে বের হয়ে আসার তাই হচ্ছে প্রথম এবং প্রধান পদক্ষেপ হবে। সবসময় রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করতে থাকবে যেন আমাদের জীবনের ভুলগুলো কমে আসে। রাব্বুল আলামীন আমাদের সকলকে ভুল থেকে বের হওয়ার তৌফিক দান করুক।