একদিনে সর্বাধিক মৃত আমেরিকায়, বিশ্বে প্রায় ৪৯ হাজার

বিশ্ব Tamalika Basu ০২-এপ্রিল-২০২০
Coronavirus
nCoV - Coronavirus Test with blood sample. Top view isolated on office desk. Healthcare/Medical concept

কোভিড-১৯ যেন অভিশাপ। সংক্রমণে লাগাম তো দূর অস্ত, যতোদিন গড়াচ্ছে ততোই বা়ডছে মৃত্যুর সংখ্যা।

মৃত্যুর সংখ্যায় বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) নতুন মাইলস্টোন ছুঁয়ে ফেলল আমেরিকা, স্পেন ও ইংল্যান্ড। ওই তিনটি দেশেই সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ৪৮ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে ৯ লাখেরও বেশি মানুষ।

যুক্তরাষ্ট্রে একদিনে সর্বোচ্চ ১ হাজার ২৮২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যাতে আছেন ১৮ বাংলাদেশিও। সব মিলিয়ে মারা গেছেন ৫ হাজারের বেশি মানুষ। এর মধ্যে বাংলাদেশি রয়েছেন ৫৩ জন। যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ১৫ হাজারের বেশি মানুষ।এমন পরিস্থিতিতে আশার কথা শোনাচ্ছেন মার্কিন বিশেষজ্ঞরা। বলছেন এ মাসেই করোনাভাইরাসের অ্যান্টিবডি পরীক্ষা করা সম্ভব হবে।

ইতালিতে ১ লাখের বেশি আক্রান্তের বিপরীতে মারা গেছেন, ১৩ হাজারের বেশি মানুষ।

স্পেনে একদিনে রেকর্ড ৮৬৪ ও যুক্তরাজ্যে সাড়ে ৫শ জনের মৃত্যু হয়েছে।

আক্রান্ত হয়েছেন ইসরাইলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও তার স্ত্রী।

ভারতের মুম্বাইয়ে এশিয়ার বৃহত্তম বস্তিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজন মারা গেছেন। ওই ব্যক্তি যে বাড়িতে থাকতেন সেখানকার ৭ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। দেশটিতে ১৮শ’র বেশি আক্রান্তের বিপরীতে মারা গেছেন ৪১ জন।

ইংল্যান্ডে একদিনে মারা গেছে ৫৬৩ জন। সেখানে মোট দু’হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে এ পর্যন্ত।দেশের পরিস্থিতি দেখে ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেই ফেলেছেন, ‘‘দুঃখজনক, খুবই দুঃখজনক ঘটনা।’’ বরিস নিজেও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। হু হু করে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে জার্মানি ও ফ্রান্সেও। দুনিয়াজুড়ে করোনার এই তাণ্ডবের মধ্যেই অবশ্য আশার আলো দেখা যাচ্ছে। এরই মধ্যে প্রায় দু’লাখ মানুষকে করোনার কবল থেকে মুক্ত করেছেন চিকিৎসকরা।