এভারেস্ট আরোহীদের জন্য কঠোর হচ্ছে আইন

সেন্স Omar Faruque ২৮-আগস্ট-২০১৯

গত চার বছরে এভারেস্ট অভিযানে পর্বতারোহীদের মৃত্যু বেড়েই চলেছে। সম্প্রতি, চলতি বছরের মে মাসে নেপাল ও তিব্বতের দিকে মোট ১১জন পর্বতারোহীর মৃত্যু হয়েছে। এবার থেকে পাহাড়ের চূড়োয় মৃত্যু ঠেকাতে নেপাল সরকাল একটি প্যানেল গঠন করেছে। যেখানে সরকারি কর্মকর্তা, ক্লাইম্বিং এক্সপার্ট ও ক্লাইম্বিং কমিউনিটির প্রতিনিধিরা থাকবেন। তাঁরাই ঠিক করবেন আরোহী ও গাইড। তবে আরোহী ও গাইড নিয়ে উচ্চতম শৃঙ্গে ওঠার জন্য গাইডকে ১১হাজার ডলার নগদ দেওয়া নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল নেপালকে। ফলে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নয়, এমন আরোহীও এভারেস্ট জয়ের স্বপ্নে মাঠে নেমে পড়েছিলেন। তার জেরে তৈরি হয়েছিল মৃত্যু মিছিল।

১৪ আগস্টে এক সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, যারা এভারেস্ট আরোহন করতে চান তাদের অন্তত ৬ হাজার ৫০০ মিটার পর্বত আরোহনের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে তারপর মিলবে এভারেস্টে ওঠার অনুমতি। এছাড়া প্রত্যেক আরোহীরে জন্য দক্ষ গাইড থাকাও বাধ্যতামূলক বলে জানানো হয়েছে। তাছাড়া সমালোচকরা বলছেন, যারা এভারেস্টে ওঠার জন্য উপযুক্ত না, অথবা ৮ হাজার ৮৫০ ফুট উচ্চতায় উঠতে গিয়ে দলের সদস্যদের গতি কমিয়ে দেয় তাদের এভারেস্টে ওঠার অনুমতি দেওয়া মানে তাদের ঝুঁকিতে ফেলা।

প্রসঙ্গত, নেপালে এভারেস্ট-সহ মোট ৮ থেকে ১৪টির মতো বিশ্বের উচ্চতম শৃঙ্গের অবস্থান। ফলে পর্বতারোহীদের সবচেয়ে পছন্দের জায়গাও হল নেপাল। এই সুযোগে এই দেশে গজিয়ে উঠেছে কর্মীর আঁতুড়ঘর ও বিদেশি টাকার অন্যতম ব্যবসা। রেকর্ড বলছে এই পর্বতশৃঙ্গ জয় করতে গিয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন প্রায় তিন শত মানুষ। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যদিও এই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে, তবে মৃত্যুর হার- অর্থাৎ যারা বেস ক্যাম্পের ওপরে আরোহণের সময়ে মারা গেছেন তাদের অনুপাত শতকরা এক শতাংশ। ২০১০ সাল পর্যন্ত, এভারেস্টে মৃত্যুর সংখ্যা ছিল মাত্র ৭২ জন। এসব মৃত্যুর বেশিরভাগ ঘটেছে তুষার ধস বা পতনের কারণে, আর এসব কারনে লাশ উদ্ধারেও বাধা সৃষ্টি করে।

অক্সিজেনের অভাবে এবছর প্রায় ১০০ জনের বেশি পর্বতারোহীর মারা যায়। যখন বাতাসের গতিবেগ অনেক বেশি থাকে, তখন অক্সিজেন ছাড়া নিঃশ্বাস নেয়া প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। তখন দ্রুত শরীরের তাপমাত্রা নেমে যেতে শুরু করে। অনেকে এ থেকেই প্রথমে অসুস্থ হয়, পরে কেউ কেউ মারাও গেছেন। এছাড়া পর্বতে চড়ার জন্য বিশাল লাইন পড়ে যাওয়ায় অনেকেই অসুস্থ হয়ে বা হার্ট অ্যাটাকে প্রাণ হারান। এবছর মোট ৩৮১ জনকে পর্বতে চড়ার পারমিট দিয়েছে নেপাল সরকার।

Source: The Daily Sun

Picture: Unsplash