করোনাভাইরাস: বাবা-ভাই আইসোলেশনে, চিনে একলা ঘরে মৃত্যু অক্ষম কিশোরের

বিশ্ব Tamalika Basu ০৪-ফেব্রু.-২০২০
disbled child
ID 151261904 © Marysmn | Dreamstime.com
পরিবারের সবাইকে করনোভাইরাসের আতঙ্কে রাখা হয় কোয়ারান্টাইনে। একলা ঘরে থেকে যায় সেরিব্রাল পালসিতে আক্রান্ত ১৭ বছরের এক কিশোর। কার্যত অনাহারে ছয় দিন পর মৃত্যু হল ইয়ান চেং নামে ওই কিশোরের।

হুইলচেয়ার ছাড়া চলাফেরা করতে পারত না ইয়ান চেং। হুইলচেয়ারও নিজে চালিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা ছিল না তার। কথা বলতে পারত না, নিজে হাতে খেতে পারত না। একা ঘরে ছয় দিন আটকে থেকে অবশেষে মৃত্যু হল তার। মর্মান্তিক এই ঘটনা চিনের করোনাভাইরাস আক্রান্ত উহানের। বাবা ও দুই ছেলে একসঙ্গে থাকত, মা মারা গিয়েছেন বেশ কয়েক বছর আগে। বড় ছেলে ইয়ান অসুস্থ হলেও ১১ বছরের ছোট ছেলে সুস্থ-স্বাভাবিক। তারা দুজনে মিলেই ইয়ানের দেখাশোনা করত।

ইয়ানের বাবা জিয়াওয়েন ও তাঁর ছোট ছেলেকে গত ২২ জানুয়ারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সন্দেহে আইসোলেশন ক্যাম্পে নিয়ে যাওয়া হয়। অনেক চেষ্টা করেও কোনও ভাবে ক্যাম্প থেকে বেরোতে পারেননি তিনি। শেষে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর সেরিব্রাল পলসি আক্রান্ত ছেলেকে দেখার আর্জি জানান সবার কাছে। প্রতিবেশীদের কাছেও বারবার তিনি অসুস্থ ছেলের খেয়াল রাখার অনুরোধ করেছিলেন। কিন্তু মৃত্যুপুরী উহানে কে কার খেয়াল রাখে। শেষ পর্যন্ত বন্ধ ঘর থেকে ইয়ানের মৃতদেহ উদ্ধার হল। এই ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসনিক অফিসারকে বরখাস্ত করা হয়েছে।