কানাডায় করোনার ২ ওষুধের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু

বিশ্ব Tamalika Basu ২২-এপ্রিল-২০২০
Blood test samples COVID- 19
© Olga Vynnychenko | Dreamstime.com

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে কানাডায় হু হু করে বেড়েই চলছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। ইতিমধ্যে কানাডায় ছয়জন প্রবাসী বাঙালি মৃত্যুবরণ করেছেন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। তবে আশার কথা হলো- এন্টিবায়োটিক এজিথ্রোমাইসিন এবং ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইন সেবনের মাধ্যমে করোনাভাইরাসের রোগীকে সারিয়ে তোলা যায় কি না তার আনুষ্ঠানিক পরীক্ষা শুরু করেছে কানাডা। কানাডার স্বাস্থ্য বিভাগ মঙ্গলবার এই ক্লিনিক্যাল টেস্টের অনুমোদন দেওয়ার পর থেকে হ্যামিল্টনে এর পরীক্ষা শুরু হয়েছে।

এরই মধ্যে হ্যামিল্টনের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৫০০ রোগীকে পরীক্ষার আওতায় আনার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।একই সঙ্গে নিজেদের বাড়িতে রেখে আরও এক হাজার রোগীকে এই পরীক্ষার আওতায় চিকিৎসা দেওয়া হবে। ভিত্তিতে এসব রোগীদের মধ্য থেকে কাউকে এই ওষুধের মিশ্রণ এবং কাউকে থেরাপি দিয়ে দিয়ে চিকিৎসা করা হবে। গবেষকরা দেখবেন কোন প্রক্রিয়াটি কার্যকর এবং নিরাপদ। গবেষক দলের অন্যতম ড. সোনিয়া আনন্দ মঙ্গলবার প্রথম রোগীকে এই ওষুধ সেবন করতে দিয়ে এক টুইট বার্তায় উচ্ছাস প্রকাশ করেন।

ম্যাকমাস্টার ইউনিভার্সিটির পপুলেশন হেলথ রিসার্চ ইন্সটিটিউট এবং হ্যামিল্টন হেলথ সায়েন্স সম্মিলিতভাবে এই ক্লিনিক্যাল টেস্ট শুরু করেছে। এই উদ্যোগের প্রধান গবেষক ড. এমিলি বেইলি টরন্টো স্টারকে বলেছেন, এই ওষুধটি কাজ করে কি-না সেটি আমরা দেখতে চাই। ওষুধটি যদি আসলেই কোনো কাজ না করে সেটিও আমাদের নিশ্চিত হতে হবে যাতে নতুন কোনো সমাধানের দিকে আমরা মনোযোগি হতে পারি।

বিশ্বের ১০টি দেশের গবেষকরা এই ক্লিনিক্যাল টেষ্টের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন বলে জানা গেছে। কানাডায় এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮ হাজার ৪২২ এবং মারা গেছেন ১ হাজার ৮৩৪ জন। এ ছাড়া করোনা থেকে ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৩ হাজার ১৮৮ জন।