গোস্ত ভক্ষণে অনলাইন আক্রমণ সৃজিত্কে

Uncategorized Tamalika Basu ২০-ডিসে.-২০১৯

কলকাতা: শ্বশুরবাড়িতে জামাই আদর করে ভুরিভোজ সাজিয়ে দিয়েছিলেন আত্মীয়রা। ভোজের তালিকা সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করে ক্ষোভ ও ঘৃণার স্বীকার হয়েছেন কলকাতার চিত্রপরিচলক সৃজিত মুখার্জি। গত ৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের মেয়ে মিথিলাকে বিয়ে করেন তিনি। বিয়ের পর সুইজারল্যান্ড আর গ্রিসে হানিমুন কাটিয়ে সম্প্রতি নতুন বউকে সঙ্গে নিয়ে প্রথমবারের শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে আসেন তিনি।

শ্বশুর বাড়িতে দারুণ আপ্যায়ন হয়েছে তার। ঝিরিঝিরি আলুভাজা, লইট্টা শুটকি, ডাল, কড়াইশুঁটি দিয়ে পাবদা মাছ, মুরগির ঝোল আর বাঁধাকপি দিয়ে গরুর গোশত ছিল খাবারের তালিকায়। মনের আনন্দেই সৃজিত এই তালিকা অনলাইনে প্রকাশ করে অনেকেই তার ধর্ম নিয়ে চড়াও হন। সামাজিক মাধ্যমে তাকে আক্রমণ করে   এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘হিন্দু নামে কলঙ্ক আপনি। আপনাকে খুব সম্মান করতাম। কিন্তু এই পোস্টটা পড়ার পর থেকে আপনাকে এখন খুব ঘৃণা করি, আপনি হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করুন।’ কেউ আবার প্রশ্ন করেছেন, আপনি কি ব্রাহ্মণ? মুখার্জি পদবীটা কেন ব্যবহার করছেন?

মন্তব্যকারীদের মোটেও ছাড় দেননি সৃজিত মুখার্জি। বেশ কড়া ভাষায় সৃজিত লিখেছেন,‌ ‘হিন্দু ধর্ম নিয়ে কথা আপনার মতো অশিক্ষিতের মুখে বেমানান। ঋগ্বেদ, মনুস্মৃতি ও গৃহসূত্রের কিছু শ্লোক দেব খাওয়া দাওয়া নিয়ে, রোজ সকালে কান ধরে ছাদে দাঁড়িয়ে মুখস্থ করবেন। ভদ্রভাবে বোঝালাম, নয়তো মনে রাখবেন বাইশে শ্রাবণ-এর সংলাপ কিন্তু আমারই লেখা।’ বাইশে শ্রাবণ ছবির সংলাপে প্রচুর গালি ব্যবহার করেছেন সৃজিত। সেই ছবির কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে সমালোচকদের এক হাত নিয়েছেন তিনি। সৃজিত আরও বলেন, ‘আমি গর্বিত এবং শিক্ষিত হিন্দু, সেটা যারা নন তাদের সঙ্গে অপ্রাসঙ্গিক ও হাস্যকর বিয়ে নিয়ে কথা বলার সময় নাই।’