জলবায়ু কন্যা বাংলাদেশের রেবেকা

Uncategorized Tamalika Basu ০৬-ডিসে.-২০১৯

ওয়াশিংটন : পরিবেশ রক্ষার আন্দোলনে সুইডেনের গ্রেটা থুনবার্গের মতো স্কুল শিক্ষার্থীরা এখন অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। গত সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনের সময় গ্রেটার ডাকে নিউ ইয়র্কসহ বিশ্বের বড়ো বড়ো শহরে সমাবেশ হয়। সে সময় ম্যানহাটানে দুই লাখের বেশি মানুষের সামনে দাঁড়িয়ে জলবায়ু পরিবর্তনে চরম ঝুঁকিতে থাকা বাংলাদেশ, বিশেষ করে বাংলাদেশি নারী, শিশু ও রোহিঙ্গাদের ঝুঁকির কথা তুলে ধরেছিলেন এক বাংলাদেশি-আমেরিকান কিশোরী। যার নাম রেবেকা শবনম।

বলা হচ্ছে, পরিবেশ রক্ষার আন্দোলনের নতুন মুখ এই সে। সম্প্রতি কাতারের গণমাধ্যম আলজাজিরা তাকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। নিউ ইয়র্কের ঐ সমাবেশে ১৬ বছর বয়সি রেবেকা দৃপ্তকণ্ঠে জানায়, আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট জরুরি অবস্থা কীভাবে জাতিগত অনাচার ও দারিদ্র্যের সঙ্গে আন্তঃসম্পর্কিত তার একটি উদাহরণ হলো বাংলাদেশ।

রেবেকার বয়স যখন ৬ বছর তখন পরিবার তাকে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যায়। এখন সে নিউ ইয়র্কের একটি হাইস্কুলের ছাত্রী। রেবেকা শবনম আল জাজিরাকে জানায়, বাংলাদেশকে নিয়ে কথা বলার সময় ভেবেছিলাম নীরবতা ছাড়া আর কিছুই শুনতে পাব না। কিন্তু জনতার সাড়া দেখে অভিভূত হয়েছি। জলবায়ু সংকট শুধু একটি পরিবেশগত ইস্যু নয়। এটি জরুরি মানবাধিকার বিষয়ক ইস্যুও। বাংলাদেশি নারী এবং রোহিঙ্গাদের আমরা জানাতে চাই যে, বিশ্বজুড়ে যুবসমাজ তাদের জীবন ও নিরাপত্তার জন্য লড়ছে।