জানেন কি কীভাবে এল ইস্তাম্বুল নামটি?

Istanbul-Turkey

তুরস্কের অন্যতম প্রধান এবং প্রাচীন শহর হল ইস্তাম্বুল। একটা সময়ে ইস্তাম্বুল কন্সটানটিনোপল নামেও বিশেষ প্রসিদ্ধ ছিল। আদতে ইস্তাম্বুল হল আনন্দের শহর, ইসলামের শহর। ইস্তাম্বুল নামের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে সুপ্রাচীন ইতিহাসের কথা। সেই ইতিহাসের এই প্রসঙ্গে আলোচনা করা যেতে পারে, পূর্বে ইস্তাম্বুল প্রাচীন গ্রীক উপনিবেশের অংশ ছিল এবং সেক্ষেত্রে ইস্তাম্বুলের নাম ছিল ‘বাইজান্টিয়াম’।

সপ্তম শতাব্দীর ইতিহাস

শোনা যায় মেগারার রাজা বাইজাস খ্রিস্টপূর্ব সপ্তম শতাব্দীতে এই প্রদেশে বাইজান্টিয়াম নামে একটি উপনিবেশ স্থাপন করেছিলেন। বিশিষ্ট প্রত্নতাত্ত্বিক এবং নৃতত্ত্ববিদ এবং “আরকিওলজি ভি সানেট” ম্যাগাজিনের সম্পাদক নেজিহ বাসগেলেন এই সম্পর্কিত বেশ কিছু তথ্য সংকলন এবং উপাদান পাঠিয়েছেন। তিনি বলেছেন যে, ইস্তাম্বুল যে ঐতিহাসিক উপদ্বীপে নির্মিত হয়েছিল, তার প্রথম নামটি ছিল বাইজানশন বা বিজনেশন। নামটি বাইজাস বা ভাইজাসের থ্রেসিয়ার নাম থেকে অনুমিত হয়েছে। এক্ষেত্রেও আরও একটি তথ্য উঠে আসে যে শহরটি থ্র্যাসিয়ান বুজি দ্বারা উত্থিত হয়েছিল, যা পরে ডেমিগড সেমেস্ট্রাসের পুত্র রাজা বিজাস (সম্ভবত বাইজাসের পরিবর্তনে) দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

ইস্তাম্বুল নামের ক্ষেত্রে অবশ্য বিভিন্ন মত এই প্রসঙ্গে উঠে আসে সেই বিষয়ে আলোচনা করা যেতে পারে। এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেশ করেন ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ধর্মতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ইয়াকুব আহমেদ বলেছেন, তাঁর মতে ইস্তাম্বুল নামটি এসেছে কার্যত অনেক পরে। এই প্রসঙ্গে উল্লেখ করতে হয়, ইয়াকুব আহমেদ ইস্তাম্বুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামিক ও অটোমান ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক।

রোমের বিকল্প

বাইজান্টাইন সাম্রাজ্যের পরবর্তী সময়ে, যখন শহরটি রোমানদের অধীনে ছিল তখন রোমান সম্রাট সেপটিমাস সেভেরাস এটির নাম দিয়েছিলেন অগাস্টা আন্তোনিয়া। মোটামুটি ৩৩০ খ্রিস্টাব্দে যখন সাম্রাজ্যের আসনটি শহরে স্থানান্তরিত হয়েছিল, তখন এটি সেকুন্ডা রোমা (দ্বিতীয় রোম) হিসেবে নথিভুক্ত হয়েছিল। এটি নোভা রোমা (লাতিন ভাষায় নতুন রোম) এবং পঞ্চম শতাব্দী থেকে এর নাগরিক, রোমাইওস নামে পরিচিত ছিল।

আদতে বাইজ়ানটিয়াম হল একটি থ্রেসিয়ার নাম। অটোমান সাম্রাজ্যে কাগজপত্রগুলিতে আরবি এবং আর্মেনিয়ান ফর্ম বা নথিতে আবার বাইজানটিয়া, বাইজান্টিয়া, বুজান্তিয়ে, পুজন্ত, বুজান্টিস নামগুলো আমরা পেয়ে থাকি।

তারপরে অবশ্যই কনস্টান্টিনোপোলিস (লাতিন) / কনস্ট্যান্টিনোপল (ইংরেজি) ছিল। নামটি রোমান সম্রাট কনস্টানটাইন দ্য গ্রেট থেকে নেওয়া হয়েছিল, যিনি এই শহরটিকে তাঁর সাম্রাজ্যের রাজধানী করেছিলেন (৩০৬ থেকে ৩৩৭ খ্রিস্টাব্দ)। এটি একটি সাধারণ নাম এবং সরকারি হয়ে ওঠে। কনস্টান্টিনাইরি উৎসটি আরব ও পার্সিয়ানরা ব্যবহার করেছিলেন, অটোমানরা এটিকে অর্থ এবং সরকারি যোগাযোগের ক্ষেত্রে ব্যবহার করেছিলেন।

অটোমান বা উসমানীয় শাসনকালে

কনস্টান্টিনোপলিস ছিল রোমান এবং বাইজেন্টাইন সময় জুড়ে ব্যবহৃত প্রচলিত নাম। এই নামটির ব্যবহার তুলনায় অনেক বেশি সময় ধরে হয়েছিল, এমনকী যখন শহরটি অটোমান শাসনের অধীনে ছিল (১৪৫৩ খ্রিস্টাব্দে) তখনও। পরবর্তীকালে তুর্কি প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আগে পর্যন্ত অটোমান সাম্রাজ্য কনস্টান্টিনিয়াইয়ের রূপ ব্যবহার করেছিল।

কনস্টান্টিনোপলের স্থানীয়রা দশম শতাব্দী থেকে এই শহরটিকে আই স্টেন পোল (শহরের অভ্যন্তরে) হিসেবে উল্লেখ করেছেন, আর্মেনিয়ান এবং আরবি উৎসগুলোতে এবং অটোমান উৎসগুলোতেও অনুরূপ প্রভাব লক্ষ করা যায়।

আহমেদ আরও বলেছিলেন, “যখন অটোমানরা ইস্তাম্বুলকে জয় করেছিল এবং তখন তারা প্রচুর পরিমাণে পুরনো গ্রিক নাম যেমন বোসপরাস, উসকুদার এবং অবশ্যই হাগিয়া সোফিয়া রেখেছিল,”। হালিল ইনালিক দাবি করেছেন যে ফাতিহ ইসলামুল নামটি সে সময়ে জনপ্রিয় করার চেষ্টা চলেছিল এবং এটি ব্যবহৃত হয়েছিল, তবে কখনওই তাকে সরকারি ভাষা হিসেবে ব্যবহার করা হয়নি। বাস্তবে উসমানীয়রা কনস্টান্টিনোপল নামক অটোম্যানাইজড/ আরবীয় নামটি ব্যবহার করে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেছিল যা তারা কনস্ট্যান্টিনিয়িয়ে বলেছিলেন। আহমেদ ব্যাখ্যা করেছেন, তারা এটিকে অন্যান্য নামও দিয়েছে যেমন পাইটাবাহট (অর্থ ক্যাপিটাল বা প্রধান) এবং অসিটেন তবে এগুলো কখনও আনুষ্ঠানিকভাবে ব্যবহৃত হয়নি, আহমেদের ব্যাখ্যা থেকে এমনই তথ্য উঠে এসেছে।

নাম নগরী

২০১২ সালে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার প্রসঙ্গে এক প্রয়াত পণ্ডিত মনে করেছিলেন, অটোমান যুগে এই শহরের সর্বাধিক প্রচলিত নাম ছিল কনস্টান্টিনোপলিস, কনস্টান্টিনিয়াইয়ের আরবি সংস্করণ এবং এটি সুখের শহর ‘ডেরাসাদেট’ নামেও পরিচিত ছিল এবং বড় দরবেশ কনভেন্ট ‘অসিটনে’। অটোমান সুলতানরা নামগুলোতে আটকে যায়নি – যদিও এর ব্যতিক্রম ছিল। সুলতান মোস্তফা তৃতীয় ব্যক্তি তাঁর সাম্রাজ্য রচনায় ইসলামের শহর ইসলামাবল শব্দটির ব্যবহার করেছিলেন। ‘ইস্তাম্বুল’ এর মূলটি গ্রীক ভাষায় ‘স্টিনপোলিস’ থেকে এসেছে এবং এর অর্থ ‘নগরীতে’ শব্দবন্ধের একটি রূপ।

প্রচলিত অর্থে এটিকে ‘শহর’ বলা যায়। কেউ যখন বলেন যে তিনি ইস্তাম্বুল যাচ্ছেন, তার অর্থ ‘উইথইন সিটি ওয়াল’। কারণ বহু পণ্ডিতের মতে এটিও হল ইস্তাম্বুলের আরও একটি নামের অর্থ…