SalamWebToday নিউজলেটার
Sign up to get weekly SalamWebToday articles!
আমরা দুঃখিত কোনো কারণে ত্রুটি দেখা গিয়েছে:
সম্মতি জানানোর অর্থ, আপনি Salamweb-এর শর্তাবলী এবং গোপনীয়তার নীতি মেনে নিচ্ছেন
নিউজলেটার শিল্প

ঝেং হি: একজন চীনা মুসলমান অভিযাত্রী, যাঁর অবদান ইতিহাসের বইতে ঠাঁই পায়নি

এশিয়া ০১ ফেব্রু. ২০২১
জানা-অজানা
ঝেং হি

আমরা সকলেই মার্কো পোলো, ফার্দিনান্দ ম্যাগেলান, ভাস্কো দা গামা, কলম্বাস এবং অন্যান্য পশ্চিমী অভিযাত্রীদের নাম জানি, যাঁরা অজানার বুকে পাড়ি দিয়ে নতুন দেশ আবিষ্কারের মাধ্যমে ইতিহাসে নিজেদের নাম অমর করে রেখেছেন। স্কুলে পড়ার সময় আমরা প্রত্যেকেই মার্কো পোলো এবং চীনে তাঁর অভিযানের কথা পড়েছি, ভাস্কো দা গামা এবং আফ্রিকার কেপ অফ গুড হোপ, কলম্বাস এবং তিনি আমেরিকা কীভাবে আবিষ্কার করেছিলেন ইত্যাদি নানা পাঠ্যের মধ্য দিয়ে ইউরোপ থেকে ভারতে সমুদ্রপথ স্থাপনে তাঁদের সাফল্য সম্পর্কে পড়ানো হয়েছে, কিন্তু কোনও স্কুলেই সেই সমস্ত অভিযাত্রীদের সম্পর্কে পড়ানো হয়নি যাঁরা পূর্বের দেশগুলি আবিষ্কার করেছিলেন।

শৈশবের মা হে

পূর্বেরই এমন এক ব্যক্তিত্ব, যিনি সমুদ্র ভ্রমণকারী এবং অভিযাত্রী হিসেবে দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তিনি হেন, তিনি হলেন মুসলিম অ্যাডমিরাল ঝেং হি। যিনি কলম্বাসেরও আগে আমেরিকা আবিষ্কার করেছিলেন তিনি হলেন ঝেং হি। তিনি চতুর্দশ শতাব্দীর শেষে ইউনান অঞ্চলের একটি ছোট্ট শহরের বাসিন্দা হুই-পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন, যা মুসলিম চীনা নৃগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত ছিল। তাঁর জন্মের সময় নাম ছিল ‘মা হে’। চীনে মা মূলত মুহাম্মদ-এর সংক্ষিপ্ত অংশ হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তিনি ছোটবেলা থেকে ইসলামের শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছিলেন এবং অল্প বয়সেই কুরআন মুখস্থ করেছিলেন। তাঁর বাবা এবং তাঁর ঠাকুরদা মক্কায় হজ করতে গিয়েছিলেন। তিনি এমন পরিবারে বেড়ে উঠেছিলেন যেখানে আরবী ও চীনা উভয় ভাষাতেই কথা বলা হত।

মা হে থেকে ঝেং হি

মা হে-এর বয়স দশ বছর, ইউনান্নে সামরিক অভিযান চালানোর সময় মিং রাজবংশের সেনাবাহিনী তাঁকে ধরে নিয়ে যায়। তারা তাঁকে নানজিংয়ে নিয়ে যায় এবং সেখানেই তিনি প্রথম সামরিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। এর পরে, তাঁকে ইয়ান রাজপুত্র তথা মিং রাজবংশের প্রতিষ্ঠাতা সম্রাটের চতুর্থ পুত্র ঝু ডি-য়ের সেবা করার জন্য বেজিংয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। মা হে-এর দক্ষতা, আনুগত্য, সততা, নিষ্ঠা এবং বুদ্ধিমত্তার কারণে মা হে শীঘ্রই তরুণ যুবরাজের ঘনিষ্ঠ বন্ধুতে পরিণত হয়েছিলেন। এই সময়েই মা হে-এর বুদ্ধি, প্রজ্ঞা এবং নেতৃত্ব প্রদানের সাবলীল ক্ষমতা অনেকেরই চোখে পড়েছিল। এর পরে প্রায় ৪ বছর যুবরাজ ঝু ডি-এর পাশে থেকে তিনি বহু সামরিক অভিযান পরিচালনা করেছিলেন, যার ফলে সেই সময় মা হে চীনের সবচেয়ে শক্তিশালী সামরিক কমান্ডারে পরিণত হয়েছিলেন।

কয়েক বছর পরে যুবরাজ ঝু ডি যখন মিং রাজবংশের সম্রাট পদ লাভ করেন, তখন তাঁকে সমর্থনকারী সমস্ত সামরিক নেতাদের তিনি পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। মা হে-ও সেই দলে ছিলেন। ১৪০৪ খ্রিস্টাব্দে, নতুন সম্রাট তাঁকে “ইম্পেরিয়াল হাউজিং এজেন্সির সুপ্রিম কমান্ড” পদমর্যাদা প্রদান করেন। ঝু ডি এই সময়েই মা হে-র নাম পরিবর্তন করেন, এবং তাঁকে নতুন উপাধি প্রদান করেন: ঝেং। তাঁর জন্য মা হে যে সমর্থন এবং আনুগত্য দেখিয়েছিলেন, তাঁর প্রতিদান হিসেবে ধন্যবাদ জানাতেই এই উপাধি প্রদান করেছিলেন নতুন সম্রাট। এই সময় থেকেই মা হে পরিচিত হন ঝেং হে বা ঝেং হি নামে।

ঝেং হি-এর আমেরিকা আবিষ্কার

ঝু ডি-এর সাথে তাঁর রাজনৈতিক পর্যালোচনা, তাঁর সামরিক অভিযানের অভিজ্ঞতা, বিভিন্ন জ্ঞানীগুণী মানুষের সাথে তাঁর যোগাযোগ, বণিকদের সাথে বাণিজ্য এবং ছোটবেলা থেকে তাঁর মধ্যে বিকশিত হওয়া বিভিন্ন গুণের জন্য তাঁর সামনে নতুন একটি সুযোগ এসেছিল: পৃথিবীকে নতুন ভাবে আবিষ্কার করার সুযোগ। পশ্চিমের দেশগুলি আবিষ্কারের জন্য সম্রাট ঝু ডি তাঁকেই আদর্শ কমান্ডার হিসেবে নির্বাচিত করেছিলেন। এর ফলে চীনের সবচেয়ে শক্তিশালী কমান্ডার হওয়ার পরে, এবার তিনি চীনের সর্বসেরা সামুদ্রিক অভিযাত্রীতে পরিণত হয়েছিলেন। তাঁকে নতুন পদ দেওয়া হয়েছিল, ফলে তাঁর নতুন নাম হয়েছিল অ্যাডমিরাল ঝেং হি।

১৪০৫ থেকে ১৪৩৩ পর্যন্ত, ঝেং হি মোট সাতটি সামুদ্রিক অভিযানে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি দক্ষিণ চীন সাগর থেকে শুরু করে আফ্রিকার পূর্ব উপকূল, এই দিকে যাওয়ার পথে তিনি ভারত মহাসাগর, পারস্য উপসাগর ও লোহিত সাগর পেরিয়েছিলেন। তিনি ভারত, আধুনিক মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা, ইরান, ওমান, ইয়েমেন, সৌদি আরব, সোমালিয়া, কেনিয়া-সহ ৩০টিরও বেশি এশীয় এবং আফ্রিকার দেশে গিয়েছিলেন। মনে করা হয়, এমনই একটি অভিযানের পথে তিনি মক্কায় গিয়ে হজযাত্রাও সম্পূর্ণ করেছিলেন। তবে ঝেং হি ছাড়াও অভিযানগুলিতে আরও কয়েক জন চীনা মুসলমান ছিলেন। যেমন, তাঁর সফরসঙ্গী তথা অনুবাদক মা হুয়ান, তিনিও একজন চীনা মুসলমান ছিলেন।

১৪২৪ সালে সম্রাট ঝু ডি-এর মৃত্যুর পরে, নতুন সম্রাট জু গাওচি (হংক্সি) সমস্ত সামুদ্রিক অভিযান বাতিল করার নির্দেশ দেন। ১৪২৫ সালে ক্ষমতায় আসেন পরবর্তী সম্রাট, তাঁর সম্মতিতে ফের সামুদ্রিক অভিযান শুরু করেন ঝেং হি। তাঁর সপ্তম তথা শেষ অভিযান সেরে ফেরার পথে, ১৪৩৩ সালে, ঝেং হি পুনরায় পারস্য উপসাগর, লোহিত সাগর ও আফ্রিকা গিয়েছিলেন, এবং ফেরার পথে ভারতে তাঁর মৃত্যু হয়। এমন বহু প্রমাণ রয়েছে, যা নির্দেশ করে যে, ঝেং হি আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া আবিষ্কার করেছিলেন, কলম্বাসের বহু আগেই। এমনকী তিনি মার্কো পোলের আগে আফ্রিকাতেও গিয়েছিলেন।