টুরিস্ট ভিসায় সৌদি আরবঃ যেসব জানা উচিৎ

ঐতিহ্যগত ভাবে রক্ষণশীল সৌদি আরব সম্প্রতি এক ঘোষণায় ধর্মীয় কারণ ব্যতীরেকেও ভ্রমণকারীদের সেদেশে ভ্রমণে স্বাগত জানায়।

প্রথমবারের মতো, বিশ্বব্যাপী পর্যটকগন তাদের ভিসার জন্য সৌদি দূতাবাস এবং কনস্যুলেটের মাধ্যমে আবেদন করতে সক্ষম হবেন।

আহমেদ আল খাতিব, সৌদি পর্যটন ও ঐতিহ্য কমিশনের চেয়ারম্যান (এসসিটিএইচ) এই বিশাল ঘোষণাটি রিয়াদের আদ-দরিয়াহ তে ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের এক ইভেন্টে তা ব্যক্ত করেন।

সৌদিতে ভ্রমণের পরিকল্পনা করার আগে যা জানা প্রয়োজন তা এখানে উল্লেখিত।

 

সৌদি আরবে ট্যুরিস্ট ভিসায় যাবার জন্য কারা আবেদন করতে পারবেন?

৪৯ টি দেশের নাগরিকগন অনলাইনে ই-ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন বা সৌদি আরবে ভ্রমণের জন্য ভিসা পাবেন। নিবেদিত একটি অনলাইন পোর্টাল visitsaudi.com উদ্বোধন হয়েছে এবং বিমানবন্দরে ইলেক্ট্রনিক ছোট ছোট কিয়স্কও স্থাপিত হয়েছে। আবেদনযোগ্য ৪৯টি দেশের তালিকা এখানে দেয়া হলো:

ইউএসএ

কানাডা

কাজাখস্থান

সিঙ্গাপুর

ব্রুনেই

নিউজিল্যান্ড

দক্ষিন কোরিয়া

জাপান

স্পেন

বেলজিয়াম

মালয়েশিয়া

অস্ট্রিয়া

সাইপ্রাস

ইউকে

ক্রোয়েশিয়া

এস্তনিয়া

অ্যান্ডোরা

ডেনমার্ক

জার্মানি

বুলগেরিয়া

ফ্রান্স

হাঙ্গেরি

চেক-রিপাবলিক

হল্যান্ড

ইটালি

ফিনল্যান্ড

আয়ারল্যান্ড

লিথুয়ানিয়া

গ্রীস

লিচেনস্টেইন

মনাকো

আইসল্যান্ড

মাল্টা

পোল্যান্ড

লাটভিয়া

নরওয়ে

রাশিয়া

লুক্সেমবার্গ

রোমানিয়া

স্লোভেনিয়া

মন্টিনিগ্রো

স্লোভাকিয়া

সুইজারল্যান্ড

পর্তুগাল

সুইডেন

অস্ত্রেলিয়া

সান মারিনো

ইউক্রেইন

হংকং, ম্যাকাও এবং তাইওয়ান সহ চীন

 

যে সব ডকুমেন্ট এর প্রয়োজন হবে

gulfnews.com অনুসারে, ই-ভিসা এবং আগমন পরবর্তী ভিসা পাওয়ার জন্য প্রয়োজন হবে:

  • সৌদি আরবে প্রবেশের সময় ছয় মাসেরও বেশী মেয়াদপূর্ণ বৈধ পাসপোর্ট
  • অবস্থানের ঠিকানা
  • ভিসার হার্ড কপি, যদিও সফট কপির পরামর্শ দেওয়া হয়।

কনস্যুলেট অনুমোদিত ভিসার জন্য

  • সৌদি আরবে প্রবেশের সময় ছয় মাসেরও বেশী মেয়াদপূর্ণ বৈধ পাসপোর্ট
  • অবস্থানের প্রমান
  • ফিরতি টিকেট
  • চাকুরির প্রমানপত্র
  • ব্যাংক স্টেটমেন্ট
  • সহায়ক অন্তর্ভুক্ত তথ্য: আইডি, বাড়ির ঠিকানা, ভ্রমণবৃত্তান্ত

 

আপনি কতো সময় থাকতে পারবেন?

একাধিক এন্ট্রি সহ এক বছরের বৈধ ভিসা এবং আপনি প্রতি প্রবেশে সর্বোচ্চ তিন মাস পর্যন্ত থাকতে পারবেন। মেয়াদের বেশী দিন থাকলে প্রতি দিনের জন্য সৌদিরিয়েল ১০০ হারে জমা দিতে হবে।

 

কি পরিমাণ অর্থের প্রয়োজন?

ই-ভিসা এবং আগমন পরবর্তী ভিসা পাওয়ার জন্য প্রায় ইউএস ডলার ১১৭ ও সঙ্গে ভ্যাট প্রদান করতে হবে।

 

সেখানে পৌঁছানোর পরে

সৌদি আরবে প্রায় ১৩ টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর রয়েছে, যেমন:

  1. কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (আরইউএইচ) – রিয়াদ
  2. কিং আবদুলাজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (জেইডি) – জেদ্দাহ
  • কিং ফাহাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (ডিএমএম) – দাম্মাম
  1. যুবরাজ মোহাম্মদ বিন আবদুলাজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এমইডি) – মদিনা
  2. তাইফ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (টিআইএফ) – তাইফ
  3. আভা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এএইচবি) – আভা
  • হইল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এইচএএস) – হ’ল
  • কিং আবদুল্লাহ বিন আব্দুলাজিজ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট (জিআইজেড) – গাজান
  1. প্রিন্স নায়েফ বিন আব্দুলাজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (ইএলকিউ) – কাসসিম
  2. প্রিন্স সুলতান বিন আব্দুলাজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (টিইউইউ) – তাবুক
  3. যুবরাজ আবদুলমোহসিন বিন আব্দুলাজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (ওয়াইএনবি) -ইয়ানবু
  • আল-জউফ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এজেএফ) – জউফ
  • আল-আহসা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এইচওএফ) – আল আহসা

 

সৌদি আরবে কী দেখতে চান?  

  • পাঁচটি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট থেকে তালিকাভুক্ত ১,০০০ টি ঐতিহাসিক সাইট এর মাঝে আছে অল-উল-এর মাদেন সালেহকে অন্তর্ভুক্ত, জর্দানের পেট্রার দক্ষিণে নবতীয়দের সভ্যতার বৃহত্তম সংরক্ষিত সাইট, আত তুরাইফ জেলার  আদ-দিরিয়াহে, সৌদি সম্রাজ্যের প্রথম রাজধানী ঐতিহাসিক জেদ্দা, মক্কার প্রবেশদ্বার, স্বতন্ত্র স্থাপত্যের ঐতিহাসিক নিদর্শন, হেইল জেলার পার্বত্য শিলালিপি, মানব ও প্রাণীর পরিসংখ্যানের ১০,০০০ বৎসরের পুরানো শিলালিপি প্রদর্শিত, আলআহসা মরূদ্যান, পৃথিবীর বৃহত্তম ২.৫ মিলিয়ন খেজুর গাছের মরূদ্যান।
  • তেরটি আঞ্চলিক, যার প্রতিটির স্বতন্ত্র সাংস্কৃতিক ইতিহাস এবং ঐতিহ্যগত রন্ধনপ্রথা।
  • একটি সমসাময়িক সংস্কৃতির দৃশ্য যা কিং আবদুলাজিজ এর সেন্টার ফর ওয়ার্ল্ড কালচার, ভাস্কর্য উদ্যান, আর্ট গ্যালারী, ফ্যাশন শো, সাহিত্য অনুষ্ঠান এবং ২০২০ সালের মার্চ মাসে উদ্বোধনী রেড সাগর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।
  • আছিরের সবুজ পর্বতমালা, লোহিত সাগরের স্ফটিক জল, বরফে আচ্ছাদিত তাবুকের সমভূমি এবং খালি কোয়ার্টারের স্থানান্তরিত বালুকণাসহ আশ্চর্যজনকভাবে বিভিন্ন ধরণের ল্যান্ডস্কেপ রয়েছে।
  • ভবিষ্যতের শহর এনইওএম, রিয়াদের নিকটবর্তী কিদিয়াহ বিনোদন শহর এবং লোহিত সাগরের বহু সংখ্যক বিলাসবহুল গন্তব্য সহ বেশ কয়েকটি নতুন গন্তব্য নির্মাণাধীন।

Source: পিআর নিউজওয়্যার, গালফনিউজ

প্রচ্ছদ ছবি: @visitsaudi/Instagram