নওমুসলিমদের জন্য: রমজানের একাকীত্বকে বিদায় জানান

ধর্মান্তরিত হওয়া একজন মুসলিম একাকীত্ব বোধ করতে পারে। ধর্মান্তরিতদের পরিবারগুলি অন্য ধর্ম অনুসরণ করে এবং ধর্মান্তরিতদের নতুন ছুটির দিনগুলি তাদের পরিবারের লোকেরা বোঝেও না এবং তারা এতে অংশও নেয় না। অমুসলিম বন্ধুরা সাধারণত এটি বুঝতে পারে না এবং নতুন মুসলিম বন্ধুরা ইতিমধ্যে তাদের নিজের জীবন নিয়েই ব্যস্ত থাকে।

তবে রমজানে তাদের একাকীত্বের এই অনুভূতি আরও তীব্র হয়। ধর্মান্তরিত মুসলিম ভাইয়েরা ভালোভাবে অবগত যে, সিয়ামের মাধ্যমে অতিবাহিত এই মাসটি তাদের নতুন পাওয়া মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য সবচেয়ে ব্যস্ততম সময় হওয়া উচিত, তবে তারা প্রায়শই এটা অনুভব করে যে, তারা হয়ত সমাজ বহির্ভুত।

যাই হোক, ইসলাম একটি কর্মময় ধর্ম। আল্লাহ কুরআনে বলেন, “নিঃসন্দেহে আল্লাহ ততক্ষণ পর্যন্ত কোনো জাতির অবস্থা পরিবর্তন করবেন না যতক্ষণ না তারা নিজেরা নিজেদের অবস্থার পরিবর্তনের চেষ্টা করে”। (আল কুরআন-১৩:১১)

অন্য কথায়, আপনি বিশ্বে এবং আপনার নিজের জীবনে যে পরিবর্তনটি দেখতে চান তা নিজেই করতে পারেন। শুধু আল্লাহর কাছে দুআ করতে থাকুন এবং উপায় উপকরণের সন্ধান করতে থাকুন। রমজানে এবং রমজানের বাইরে আপনার পারিপার্শ্বিক অবস্থার পরিবর্তন করতে সক্রিয় হয়ে উঠুন।

অভ্যন্তরীণ পরিবর্তনসমূহ

আপনার কাছে যা নেই তা নিয়ে এই মূল্যবান মাসে আপনার দৃষ্টিভঙ্গিকে কেন্দ্রীভূত করার পরিবর্তে, আপনার কাছে যা আছে তা নিয়ে ভাবার চেষ্টা করুন। যদিও মানুষ সামাজিক জীব এবং তারা সামাজিক ও পারিবারিক বন্ধন থেকে প্রচুর উপকৃত হয়, তাই আপনি বাস্তবে কখনই একা নন। আল্লাহ সর্বদা আপনার সাথে আছেন। তিনি আপনার ঘাড়ের শিরা থেকেও আপনার নিকটবর্তী। রমজানে আপনি আল্লাহর যতটুকু নিকটবর্তী হবেন, আল্লাহও আপনার ততটুকু  নিকটবর্তী হবেন।

আল্লাহ তা’আলা হাদিসে কুদসীতে বলেন, “আমি  আমার বান্দার প্রতি যা ফরজ করেছি তা পালন করার দ্বারাই সে আমার অধিক নৈকট্য লাভ করে। আমার বান্দা নফল ইবাদতের মাধ্যমেও আমার নৈকট্য হাছিল করতে থাকে। অবশেষ আমি তাকে ভালবেসে ফেলি। যখন আমি তাকে ভালবাসি তখন আমি তার কান হয়ে যায়, যা দিয়ে সে শুনে। আমি তার চোখ হয়ে যায়, যা দিয়ে সে দেখে। আমি তার হাত হয়ে যায়, যা দিয়ে সে ধরে। আমি তার পা হয়ে যায়, যা দিয়ে সে চলাফেরা করে। সে আমার নিকট যা কিছু প্রার্থনা করে, আমি তাকে তা দেই। সে যদি আমার নিকট আশ্রয় চায়, তাহলে আমি তাকে আশ্রয় দেই”। (সহীহ বুখারী)

ইতিবাচক চিন্তা করুন। আপনি আপনার সব থেকে সেরা বন্ধুকে সাথে পাবেন।

এছাড়াও, আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, জীবন সর্বদা প্রবাহমান। এই মুহুর্তে আপনার নিজেকে দেওয়ার মতো এবং একটু নিরিবিলি কাটানোর মতো অনেক সময় আছে আবার চোখের পলকের মধ্যেই জীবন বদলে যায় এবং আপনি আপনার পারিবারিক কর্তব্য এবং চাহিদা পালনের জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েন এবং যারা শান্ত এবং স্থির মুহুর্ত কাটায় তাদের মত হওয়ার জন্য প্রার্থনা করতে থাকেন।

অপার্থিব পরিবর্তনসমূহ

রমজানে যদি আপনি একাকী বোধ করেন তবে অনলাইনেও অনেক সহায়তা পেতে পারেন। আপনার থেকে অনেক দূরে থাকা মানুষও আপনার জীবন পরিবর্তনে ভূমিকা রাখতে পারে।

Ifoundislam.net ইসলামে ধর্মে ধর্মান্তরিত ব্যক্তিদের জন্য এটি একটি অসাধারণ সাইট। এই সাইটটি প্রচুর পরিমাণে তথ্যের সরবরাহ করে এবং ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে দৃঢ় করে। এখানে আপনি আপনার মত ধর্মান্তরিত হওয়া একজন মুসলিমকে খুঁজে পেতে পারেন যিনি আপনাকে উত্সাহিত করতে পারেন এবং এই বরকতময় মাসে এবং তার বাইরেও আপনার সাথে যোগাযোগ রাখতে পারেন।

রমজানে স্বস্তিবোধ ও যোগাযোগের মাধ্যম গুলোর মধ্যে আরেকটি দুর্দান্ত মাধ্যম হল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমের কোনো গ্রুপে যুক্ত হওয়া। “Alone in Ramadan – Online Ramadan Iftar Project” যুক্ত হওয়ার মত একটি অসাধারণ গ্রুপ। আপনি এই গ্রুপটিতে যুক্ত হওয়ার জন্য অনুরোধ করতে পারেন, কারণ এটি একটি ব্যক্তিগত গ্রুপ এবং কেবল ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমদের জন্যই এটি উন্মুক্ত।

একবার সদস্য হয়ে গেলে, আপনি সময়-অঞ্চলভেদে  নিজেকে Skype এর মাধ্যমে বা অন্যান্য পদ্ধতির মাধ্যমে তালিকাভুক্ত হতে পারেন যাতে করে আপনি এই গ্রুপের সদস্যদের সাথে ইফতারি ভাগ করতে এবং ওয়েবে একসাথে চ্যাট করতে পারেন।

যদি এ সমস্ত কিছু ব্যর্থ হয় তাহলে আপনি অন্ততপক্ষে আপনার মত পরিস্থিতিতে ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমদের একটি ভিডিও দেখতে পারেন: Conver(t)sations: the Unheard Stories of Muslim Converts by American Muslims.

ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমদের জন্য অনলাইনে অনেক সমর্থন এবং উত্সাহের মাধ্যম রয়েছে যাতে আপনাকে কখনই একা অনুভব করতে না হয়।

ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমদের রমজানে আর একাকী বোধ করতে হবে না। দৃষ্টিভঙ্গিকে ইতিবাচক রেখে,  আমাদের সম্প্রদায়ের অনবদ্য অংশ হয়ে এবং অনলাইনে একটি সম্প্রদায় গড়ে তুলে রমজানের ধর্মান্তরিত হওয়া মুসলিমদের একাকীত্ব বোধ দূর করা অনেকাংশেই সম্ভব এবং এটি বাস্তবও বটে।