নারীকে সুরক্ষা দিয়েছে ইসলাম

 ifrah-akhter-at9JZhq30ik-unsplash.jpg
Fotoğraf: İfrah Akhter-Unsplash

ইসলাম ও নারী, এই বিষয়টি চিরাচরিত ভাবেই সমগ্র পৃথিবীর কাছে একটি বিতর্কের বিষয়। ইসলাম কি নারীকে তার পর্যাপ্ত স্বাধীনতা দেয়? ইসলামে নারীর অবস্থান ঠিক কোথায়? দেখা যাক ইতিহাসের কিছু না-বলা ঘটনাগুলিকে।

ইসলাম পূর্ববর্তী যুগে নারীরা ছিল শুধুমাত্র পণ্য, পুরুষের সম্পদ, ভোগবিলাসের উপকরণ। তখন সমাজে নারীদের যেমন গণ্য করা হতোনা মানুষ বলেই, তারা ছিল শুধুমাত্র বিলাসিতার জন্য পুরুষের ভোগসামগ্রী তখন ইসলাম প্রথমবার নারীকে মর্যাদা দিয়েছিল। পুরুষের ভোগ্যপণ্য থেকে নারীকে বসিয়ে সম্পদের আসনে, মাতা-স্ত্রী-কন্যা শব্দগুলির মূল্য ইসলাম নির্ধারণ করেছিল।

পৃথিবীর যেকোনো সংস্কৃতি বা সভ্যতায় নারীরা সর্বদাই অবহেলিত, বঞ্চিত ছিল। সেই পুরাকাল থেকে আজও কন্যাসন্তানের জন্মকে দূর্ভাগ্যের কারণ হিসাবে দেখা হয়। ইসলামই প্রথমবার এর বিপরীত পদক্ষেপ নিয়েছিল।

ইসলাম শুধুমাত্র নারীকে মানুষের মর্যাদাই দেয়নি, দিয়েছে মতামত প্রকাশের অধিকার, স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির অধিকার। এমনকি নারী কাকে বিবাহ করবে সেখানেও শেষ কথা নারী বলে, স্বামীর আচ্ছাদনের নীচে সে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত। এমনকি তালাকপ্রথার মাধ্যমে তার সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসার অধিকারও আছে একেবারে ইসলামের গোড়ার দিক থেকে।

এর বদলে নারীর জন্য বেশ কিছু নিয়মও আছে যা তার নিজের সুরক্ষার্থে এবং পবিত্রতার খাতিরে মেনে চলা অবশ্য কর্তব্য। বাহ্যিক পৃথিবীর যে অসংবরণীয় লোভ নারীর প্রতি তা প্রতিহত করতে নারীকে প্রথমে পিতার পরে স্বামী ও সন্তানের আচ্ছাদনে রাখা হয়। বাইরের পৃথিবীর কথা চিন্তা না করে শুধুমাত্র নিজের দায়িত্বপালনের জন্য এটি একান্তই প্রয়োজনীয়। নারীর শিক্ষার অধিকার প্রথম থেকেই ইসলামে আছে, তা শুধুমাত্র সর্বসম্মখে সম্মত নয়।

আজকের দিনে নারীকে সমস্ত ক্ষেত্রে যেভাবে পণ্যায়ন করা হচ্ছে টিভি, সিনেমা বা বিজ্ঞাপনে তা কোনভাবে কাঙ্খিত? কোনো সুস্থ সম্প্রদায় কি এর যুক্তি দিতে পারবে যে ব্যবসায়িক কারণে নারীকে পণ্যজাত করা সঠিক?

ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে নারীকে সমস্তভাবে সুরক্ষিত করা হয়েছে, তার মতপ্রকাশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে এবং এও বলা হয়েছে মাতার পদতলে সন্তানের জান্নাত। তবে হ্যাঁ বহুক্ষেত্রে সঠিক ইসলামী জ্ঞান ও সংস্কারের অভাবে মানুষের দোষে নারীকে দুর্দশার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। এর জন্য প্রয়োজন সঠিক শিক্ষা ও সংস্কার যা আমাদের পথ দেখাবে নারীকে তার সঠিক মর্যাদা দিতে।