নির্ভয়ার ধর্ষক-খুনিদের ফাঁসি আটকে গেল শেষ সময়ে

জীবন Tamalika Basu ৩১-জানু.-২০২০
A hangmans noose is a rope loop with a running knot used to hang people

ভারতের দিল্লিতে নির্ভয়াকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত আসামিদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ার কথা ছিল ১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সময় সকাল ৬টায়। কিন্তু মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আগেরদিন আজ শুক্রবার মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের দিনক্ষণ বাতিল করা হয়েছে। আজ শুক্রবার এক আসামির করা ক্ষমা প্রার্থনার আরজির কারণে দিল্লির আদালত এই আদেশ দেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, আদালতের পরবর্তী নির্দেশ ছাড়া কোনো আসামির মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা যাবে না। দিল্লির আদালত মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের এই আদেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দিয়েছে। এক আসামির আইনজীবী এপি সিং বলেন, ‘মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকরের দিনক্ষণ বাতিল করা হয়েছে এবং কোনো নতুন তারিখ এখনো দেওয়া হয়নি।’ এই মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চার অভিযুক্ত হলেন-মুকেশ সিং, বিনয় শর্মা, অক্ষয় কুমার সিং ও পবন গুপ্ত।

২০১৭ সালে নির্ভয়া ধর্ষণ কাণ্ডে ফাঁসির নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত। তার পর থেকে আইনের সমস্ত সংস্থান হাতড়ে বেরিয়েছে আসামিরা। এক দিকে ফাঁসির প্রস্তুতি শুরু হয়েছে তিহাড় জেলে। ফাঁসুড়ে পৌঁছেছেন, হয়ে গিয়েছে মহড়াও। অন্য দিকে ফাঁসির রায় স্থগিত করার সমস্ত চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছেন দণ্ডিতরা।

শুক্রবার ভারতের সুপ্রিম কোর্টে একটি নতুন পিটিশন ফাইল দাখিল করা হয়। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট তা খারিজ করে দেন। এর পর পরই এই মামলায় দোষী সাব্যস্ত চার আসামির একজন রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন জানান। রাষ্ট্রপতি যদি এই আবেদন তৎক্ষণাৎ খারিজ করেও দেন, তবুও আগামী ১৪ দিনের আগে মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকর করা যাবে না। ভারতের আইন অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির কাছে করা ক্ষমার আবেদন খারিজ থেকে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের সময়ের মধ্যে অন্তত দু সপ্তাহ ব্যবধান থাকার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।