পরীক্ষা আমাদের সকলের জন্য অপেক্ষা করছে

drown

মানবজাতি কি এটা মনে করে যে, সে শুধু মুখে এই দাবি করবে, আমি ঈমানদার আর আল্লাহ তাকে পরীক্ষা করবেন না?

আল্লাহ বলেনঃ

“মানুষ কি এটা ভেবে নিয়েছে যে, আমরা তাকে পরীক্ষা করবো না? আমরা অবশ্যই তাদেরকে পরীক্ষা করবো যেমনটা তাদের পূর্বে সকল জাতিকে পরীক্ষা করেছিলাম, এটা পার্থক্য করার জন্য যে, কারা তাদের কথায় সত্যবাদী আর কারা মিথ্যাবাদী” (আল কুরআন – ২৯:২)

আল্লাহ আপনাকে পরীক্ষা করবেন – আপনি কিভাবে এর প্রতিক্রিয়া দেখাবেন?

আপনি বলছেন আপনি ঈমানদার, ঠিক আছে, আমরা তাহলে এখন আপনাকে পরীক্ষা করতে চাচ্ছি। তবুও কি আপনি বিশ্বাস করবেন? এটা কি আপনাকে বিনয়ী করবে? এটা কি আপনাকে আল্লাহর নিকটবর্তী করবে? যদি এটি হয়ে থাকে তবে তো আলহামদুলিল্লাহ, এটি আপনার জন্যই ভাল হবে,আর আল্লাহর রাজত্বকে কোনো কিছুই হ্রাস করতে পারবে না।

একটি হাদিসে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ

“সৃষ্টির সূচনা থেকে শেষ পর্যন্ত সকল মানবজাতিকে যদি একটি ময়দানে জড় করা হয় আর তাদের প্রত্যেককে যদি আল্লাহ তাদের চাহিদা অনুপাতে দান করেন তবে এর দ্বারা আল্লাহর খাজানায় অতটুকু কমতি হবে না যতটুকু সমুদ্রের মধ্যে আঙ্গুল ডুবালে আঙ্গুলের মাথায় চলে আসা পানি কারণে সমুদ্রের ভিতরে কমতি হয়”

এটাই হলেন আল্লাহ, তাই আল্লাহর হারানোর কি আছে?

কিচ্ছু না।

আর আল্লাহর পাওয়ার কি আছে?

কিচ্ছু না।

এটা আপনি আর আমি যাদের কিছু যায় বা আসে , তাঁদের ভয় দ্বারা পরীক্ষা করা হবে

অনুরূপভাবে আপনাকে আরেকটি বিষয় বুঝতে হবে। আল্লাহ বলেনঃ

“এবং অবশ্যই আমি তোমাদেরকে পরীক্ষা করব কিছুটা ভয়, ক্ষুধা, মাল ও জানের ক্ষতি এবং ফল-ফসল বিনষ্টের মাধ্যমে। তবে সুসংবাদ দাও সবরকারীদের।” (আল কুরআন – ২:১৫৫)

আপনি যদি সূরা বাকারার এই আয়াতের অর্থের দিকে লক্ষ্য করেন তবে দেখবেন আয়াতের অর্থটি প্রকৃতপক্ষে খুব ভারী। আমি বুঝাতে চাচ্ছি, আল্লাহ তা’আলা খুব দৃঢ়ভাবে এটি বলেছেন; তিনি এটিকে অত্যন্ত তাৎপর্য দিয়েছেন।

তিনি বলেছেনঃ

আমরা অবশ্যই তোমাকে পরীক্ষা করব।

কি দ্বারা?

ভয় দ্বারা পরীক্ষা করব।

কোন ধরনের ভয়?

এটা জরুরি নয় যে, একই ধরণের ভয় দ্বারা পরীক্ষা করা হবে। আপনি আপনার স্বাস্থ্য সম্পর্কে উদ্বিগ্ন, আপনার খাবার সম্পর্কে উদ্বিগ্ন, আপনি আপনার পানীয় সম্পর্কে উদ্বিগ্ন, আপনি আপনার সুরক্ষার জন্য উদ্বিগ্ন, আপনি শত্রু সম্পর্কে উদ্বিগ্ন, আপনি প্রাণী, বিদ্যুৎ, জল, নগদ অর্থ ইত্যাদি সম্পর্কে উদ্বিগ্ন… আপনি অন্য সব কিছুর বিষয়েই উদ্বিগ্ন।

এটা অবশ্যই একটা চিন্তার বিষয় যে, আমরা সবাই বিভিন্ন উদ্বিগ্নতার মধ্য থেকে সময় অতবাহিত করছি। সুবহানাল্লাহ!

আল্লাহ বলেনঃ

“আমরা তোমাদেরকে ভয় দ্বারা পরীক্ষা করব”।

কেউ আপনাকে জিজ্ঞাসা করতে পারেঃ

“আপনার সবচেয়ে বেশি ভয়ের কারণ কোনটি?”

আপনার কাছে হয়ত এটির দীর্ঘ একটা তালিকা থাকবে।

আপনি কত দিন ধরে উদ্বিগ্ন? আমি আপনাকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, এটা গত ২০-৩০ বছরের বেশি হবে না, তাই না?

কে এত দীর্ঘদিন আপনার সাথে রয়েছে? আল্লাহ।

আমি আপনাকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, আপনি অতীতে যেভাবে ছিলেন তার চেয়ে আজ আপনি অনেক ভাল অবস্থায় আছেন। আর আমরা এখনও উদ্বিগ্ন, সুবহানাল্লাহ! যখন আমাদের কিছুই ছিল না, তখনও আমরা উদ্বিগ্ন ছিলাম। আর এখন আমরা অনেক কিছু পেয়েছি, তারপরও আমরা উদ্বিগ্ন!

কেন?

কারণ আমদের নির্ভরতা এখন আমাদের কাছে যা আছে তার উপর, এখন আর আল্লাহর উপর আমদের নির্ভরতা নেই, এটাই হল মূল সমস্যা।