পাকিস্তানে নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো বাংলাদেশি ক্রিকেট দল

জীবন Tamalika Basu ২৩-জানু.-২০২০
bangladesh cricket
ID 125419543 © Vladm | Dreamstime.com

রাত পোহালে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু বাংলাদেশ-পাকিস্তানের । কোন দল কি ভাবছে? দু দলের চিন্তা-ভাবনা, লক্ষ্য-পরিকল্পনা কি? উইকেট কেমন? এবং কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষর শক্তি-সামর্থ্যের কথা ভেবে নাকি নিজেদের শক্তির কথা চিন্তা করে একাদশ সাজানো হবে? কোথায় প্রেস কনফারেন্সে এসব প্রশ্ন হবে, তা না সবার আগেই উঠলো নিরাপত্তা ইস্যু।

বাংলাদেশের সফর ঘিরে নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে পাকিস্তান সরকার। ১০ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্যকে দায়িত্ব দিয়েছে পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এছাড়াও সিরিজ চলাকালীন দায়িত্বে থাকবেন ১৭ এসপি, ৪৮ ডিএসপি, ১৩৪ ইন্সপেক্টর ও ৫৯২ জন আপার সাবঅর্ডিনেট। বুধবার রাতে বিমানবন্দর থেকে হোটেলে এবং আজ (বৃহস্পতিবার) দুপুরে হোটেল থেকে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে অনুশীলনে যাওয়া-আসার সময় ক্রিকেটারদের নেওয়া হয় বুলেটপ্রুফ গাড়িতে। রাস্তার চারপাশ নিরাপত্তার চাদরে মোড়ানো তো ছিলই।

স্বাভাবিকভাবেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের কাছে এলো নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশ্ন। বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক যা বললেন, সেটাই হয়তো শুনতে চেয়েছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। নিরাপত্তা ব্যবস্থায় পুরোপুরি সন্তুষ্ট তিনি, ‘এমন নিরাপত্তা আগে দেখিনি। এই মুহূর্তে এটা (নিরাপত্তা ব্যবস্থা) অনেক উপভোগ করছি। নিরাপত্তার দিক থেকে বলবো, পাকিস্তান আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিচ্ছে। আমি সব ব্যবস্থাপনায় সন্তুষ্ট।’ যদিও নিরাপত্তা নিয়ে খুব একটা ভাবনাও নেই মাহমুদউল্লাহর, ‘আমরা নিরাপত্তা নিয়ে এতটুকুও ভাবছি না। প্লেনে ওঠার আগে দেশেই ওটা রেখে এসেছি। এই মুহূর্তে পাকিস্তানের মাঠে ভালো ক্রিকেট খেলারই শুধু চিন্তা করছি। ভালো একটি সিরিজ উপহার দিতে চাই সবাইকে।’

পাকিস্তান সফর নিয়ে কতই না আলোচনা। নিরাপত্তার প্রশ্নে বাতিলই হওয়ার জোগার এই সফর! অনেক নাটকীয়তা শেষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলতে পাকিস্তানে যাওয়ার পর উল্টো চিত্র! বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলছেন, এমন নিরাপত্তা কখনোই দেখেননি তিনি।