পুরানো ফোনেই চলবে সিসি টিভির কাজ

সন্ধান Omar Faruque ২৪-আগস্ট-২০১৯

বাসা বাড়ি খুঁজতে গেলে অনেকেই নিরপত্তার জন্য সিসি টিভি ক্যামেরার নজরদারি আছে কিনা তা জানতে চান।
নিরাপত্তা নিশ্চিতে বা কোনো দুর্ঘটনার কারণ খুঁজে বের করতে সিসি টিভি বেশ কাজে দেয়। প্রযুক্তিবিষয়ক মার্কিন সাইট সিনেট জানিয়েছে, মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী ইচ্ছে করলেই তার ফেলে রাখা পুরোনো ফোনকে সহজেই সিকিউরিটি ক্যামেরায় রূপান্তর করতে পারবেন এবং যে কোনো জায়গা থেকে তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন তবে সেক্ষেত্রে অবশ্যই ফোনটি স্বচল হতে হবে এবং পেছনের ক্যামেরার কার্যক্ষমতাও ঠিক থাকতে হবে।

প্রথম ধাপ: সিকিউরিটি ক্যামেরা অ্যাপ ইনস্টল করা
শুরুতে, ফোন ব্যবহারকারীকে অবশ্যই পুরানো ফোনে একটি সিকিউরিটি ক্যামেরা অ্যাপ ইনস্টল করতে হবে। যদি পুরানো ফোনটি আইফোন হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে ‘মেনিথিং’ অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করা যেতে পারে যা অ্যাপ স্টোর থেকে ফ্রি ডাউনলোড করা যাবে। অ্যান্ডরয়েড হলে প্লে স্টোরে গিয়ে ফোনটিতে আলফ্রেড নামের একটি সিকিউরিটি ক্যামেরা অ্যাপ নামিয়ে নিতে হবে। অ্যাপটি ইনস্টল থাকলে পুরানো ফোনের ধারণাকৃত দৃশ্য দেখা যাবে নতুন ফোনে।
অ্যাপটি আপনার নিজের ফোনে ও পুরানো ফোনে দুই জায়গাতেই ডাউনলোড করতে হবে। আপনার ব্যবহৃত ফোনে ইন্ট্রোডাকশনের অংশটি সোয়াইপ করে স্টার্ট বাটনে ক্লিক করতে হবে। ‘ভিউয়ার’ অপশনে ক্লিক করে ‘নেক্সট’ এ ট্যাপ করতে হবে। এরপর সাইন ইন পেইজে গিয়ে নিজের গুগল অ্যাকাউন্টে সাইন ইন করতে হবে।
পুরানো ফোনের ক্ষেত্রেও একই ধাপ অনুসরণ করতে হবে। শুধু ‘ভিউয়ার’ এর জায়গায় ‘ক্যামেরা’ অপশনটি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর একই গুগল অ্যাকাউন্টের আবারও সাইন ইন করতে হবে।
আইফোনের বেলায় পুরানো এবং নতুন দুটো ফোনের জন্য অ্যাপ স্টোর থেকে মেনিথিং অ্যাপ ডাউনলোড করতে হবে। পুরোনো ফোনের ক্ষেত্রে সেটিংস্ এ গিয়ে স্ক্রিন অটো লক বন্ধ করে দিতে হবে। ইমেইল অথবা ফেইসবুক আইডি ব্যবহার করে অ্যাপটি রেজিস্টার করতে হবে। পুরানো আইফোনের ক্ষেত্রে ক্যামেরা মোড এবং নতুনটির ক্ষেত্রে ভিউয়ার মোড সিলেক্ট করতে হবে। সরাসরি সম্প্রচারের জন্য ক্যামেরা মোডে রেড বাটন প্রেস করতে হবে। নতুন ফোনটিতে ভিডিও রেকর্ডগুলো লিস্ট আকারে চলে আসবে, অন্যথায় ব্যবহারকারী মেনিথিং.কম-এ লগ ইন করে ভিডিওগুলো দেখতে পারবেন।
ফ্রি অ্যাপসে লাইভ ভিডিও, অ্যালার্ট নোটিফিকেশন, ক্লাউড স্টোরেজ, সামনের ও পেছনের ক্যামেরার ব্যবহার ও টু ওয়ে অডিও ফিডের সুবিধা মিলবে।
তবে ভিডিও ও অডিও রেকর্ডিংয়ের জন্য ভালো রেজুলেশন, জুম সুবিধা, ৩০ দিনের ক্লাউড স্টোরেজ ও বিজ্ঞাপন এড়াতে চাইলে অ্যালফ্রেড প্রিমিয়াম সেবায় আপগ্রেড করতে হবে।
দ্বিতীয় ধাপ: পছন্দসই জায়গা বেছে নেয়া
অ্যাপ চালু করার পর অ্যাপ ব্যবহারকারীকে পুরনো ফোনটি সেট করার জন্য তার বাসস্থানের উপযুক্ত একটি জায়গা বেছে নিতে হবে। যদি একাধিক পুরোনো ফোন থাকে, ‍সেক্ষেত্রে বাড়ির বিভিন্ন জায়গায় ফোনগুলো সেটআপ করে নেয়া যেতে পারে।
তৃতীয় ধাপ: ক্যামেরার কার্যক্ষমতা উন্নত করা
সিকিউরিটি ক্যামেরা হিসেবে সেট করার জন্য স্মার্টফোন ট্রাইপড কাজে আসতে পারে ব্যবহারকারীর। ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ভিউ পাওয়ার জন্য পুরানো স্মার্টফোনটিতে একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স লাগানো যেতে পারে এবং
অ্যাপের কাজ শেষ হলে পুরোনো ফোনটিকে চুম্বক, সাকশন কাপ মাউন্ট বা ট্রাইপডের সঙ্গে আটকে তা ঘরের সদর দরজার বাইরে বা নিচে গেইটের কাছে রাখতে হবে। চাইলে ফোনটির সঙ্গে ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স যুক্ত করে আরও বড় পরিসরে নজরদারির কাজ চালানো যাবে।
ভিডিও ধারণের কাজে ফোনের ব্যাটারি খুব দ্রুত শেষ হয়। তাই ফোনটির আশপাশে অবশ্যই বিদ্যুৎ সরবরাহের ব্যবস্থা থাকতে হবে যাতে ১০ ফুট লম্বা ইউএসবি ক্যাবল দিয়ে ফোনটি রিচার্জ করা যেতে পারে।

Source: Daily Sun