শরিয়াহ সম্মত ওয়েব পরিবেশ. আরওসন্ধানকরুন

প্রবাসে ফিদিয়া প্রদানের একটি উপায়

ফিদিয়া হল দরিদ্র ও অভাবীদের জন্য একটি ধর্মীয় অনুদান যা কোনো কারণবশত রোজা ভঙ্গ হয়ে গেলে অবশ্যই প্রদান করতে হয় (যেমন যখন কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ে, ভ্রমণে থাকে, গর্ভবতী বা বৃদ্ধ বয়সে উপনিত হলে) এবং এটি রমজানের পরে আর প্রদান করা যায় না।

ফিদিয়া হলো কুরআনে বর্ণিত একটি ধর্মীয় আদেশ যা রমজানে রোজা রাখতে ব্যর্থ এমন ব্যাক্তিদেরকে আদেশ করা হয়েছে, যেমন কুরআনে বর্ণিত হয়েছে:

“রোজা নির্দিষ্ট কতক দিনের জন্য, এবং তোমাদের মধ্যে যে রোগী হবে কিংবা সফরে থাকবে সে (রমজানের পর) অন্য দিনগুলোতে রোজা রাখতে পারবে। আর যারা পরবর্তীতে (কাযা) রোজা রাখতে সক্ষম (তবুও রোজা রাখছে না) তাদের জন্য দায়মোচনের একটি পন্থা হচ্ছে-প্রতিটি রোজার বদৌলতে একজন অভাবগ্রস্ত ব্যক্তিকে (পেট ভরে) খাওয়াতে হবে।” (পবিত্র কুরআন, ২: ১৮৪) অর্থাৎ আল্লাহর দৃষ্টিতে নিজেকে মুক্ত করার জন্য প্রতিটি রোজার বিনিময়ে আপনাকে একজন অভাবীকে দু’বেলা খাবার সরবরাহ করতে হবে।

ফিদিয়া কি?

ফিদিয়া হল দরিদ্র ও অভাবীদের জন্য একটি ধর্মীয় অনুদান যা কোনো কারণবশত রোজা ভঙ্গ হয়ে গেলে অবশ্যই প্রদান করতে হয় (যেমন যখন কেউ অসুস্থ হয়ে পড়ে, ভ্রমণে থাকে, গর্ভবতী বা বৃদ্ধ বয়সে উপনিত হলে) এবং এটি রমজানের পরে আর প্রদান করা যায় না।

রমজানে ছুটে যাওয়া প্রতিটি রোজার জন্য ফিদিয়া প্রদান করতে হবে। এটি বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছেছে এমন প্রতিটি মুসলমানের জন্য একটি ধর্মীয় বাধ্যবাধকতা,যারা রমজানে কিছুদিনের জন্য রোজা রাখতে পারেনি এবং যারা ছুটে যাওয়া রোজা গুলো পরে কাযা করে দিতেও অক্ষম।

কিভাবে আর্থিকভাবে আমার রোজার ফিদিয়া এবং কাফফারা আদায় করব?

ফিদিয়া এবং কাফফারার মাধ্যমে প্রাপ্ত অনুদানগুলি সর্বদা ঐতিহ্যগতভাবে ক্ষুধার্ত ও দরিদ্রদের খাওয়ানোর জন্য ব্যবহৃত হয়ে আসছে এবং আমরা মুসলিমদের এই প্রথাটিকে সম্মান করি।

যুক্তরাজ্যের অনুদান সংস্থা পেনি অ্যাপিল জানিয়েছে, সমস্ত ফিদিয়া এবং কাফফারার অনুদান জরুরি ভিত্তিতে তাদের খাদ্য সহায়তা প্রোগ্রাম, তাদের ওয়ার্ল্ড ফিড এবং তাদের গৃহহীন শরণার্থীদের, বিশেষত সিরিয়া ও মায়ানমারের সংঘাতের কারণে বাস্তুচ্যুতদের, দরিদ্র্যতায় জর্জরিত এবং আফ্রিকা, এশিয়া এবং মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলিতে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তদের খাওয়ানোর জন্য ব্যয় করা হচ্ছে। খাদ্য সরবরাহে অভিজ্ঞ প্রতিষ্ঠান এবং ব্রিটেনে বিভিন্ন মুসলিম দাতব্য প্রতিষ্ঠানের সাহায্যে অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতিতে বসবাসরত দরিদ্র ও অভাবী মুসলমানদের পুষ্টিকর, জীবন রক্ষাকারী খাবার সরবরাহ করার জন্য তারা আপনার ফিদিয়া এবং কাফফারা ব্যবহার করবে। আর্থিকভাবে রোজার ফিদিয়া ও কাফফারা আদায় করার মাধ্যমে আপনি যেমনিভাবে আপনার ধর্মীয় দায়িত্ব পালন করতে পারবেন, অনুরূপভাবে বিশ্বের সবচেয়ে দরিদ্র মানুষগুলোর জন্যও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে পারবেন।

আপনার জন্য বরকতময় রমজান কামনা করছি

এই রমজানে আপনি রোজা রাখছেন বা না রাখছেন, আমরা আপনার জন্য গভীর সংযোগ, আধ্যাত্মিকতা এবং প্রিয়জনের সাথে একত্রিত হওয়ার মত ধন্য এক মাস কামনা করছি

পেনি অ্যাপিল আপনাকে পুরোপুরি নিশ্চিত করছে যে, দারিদ্র্য, সংঘাত এবং কোভিড -১৯ দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থদের পুষ্টিকর খাবার সরবরাহের জন্য আপনার অনুদানগুলি সর্বোত্তম উপায়ে ব্যবহার করা হবে।

কিছুবলারথাকলে

যোগাযোগকরুন