SalamWebToday নিউজলেটার
Sign up to get weekly SalamWebToday articles!
আমরা দুঃখিত কোনো কারণে ত্রুটি দেখা গিয়েছে:
সম্মতি জানানোর অর্থ, আপনি Salamweb-এর শর্তাবলী এবং গোপনীয়তার নীতি মেনে নিচ্ছেন
নিউজলেটার শিল্প

ফাইবারে সমৃদ্ধ ভুট্টার দানা দূর করে রক্তাল্পতা

স্বাস্থ্যকর খাদ্য ১২ ফেব্রু. ২০২১
সুস্বাদু
ভুট্টার
Photo by Adonyi Gábor from Pexels

স্কুল, কলেজ থেকে ফেরার পথে হাঁটতে-হাঁটতে লবণ-লেবু মাখানো ভুট্টা পোড়ানোর কথা মনে করলেই জিভে পানি চলে আসে। ভুট্টাপোড়া খেতে ভাল, খেলে পেট অনেকক্ষণ ভর্তি থাকে, ফলে সস্তায় পুষ্টিকর খাবার যারা খোঁজেন, তাঁদের তালিকায় ভুট্টা খুব সহজে জায়গা করে নেয়। তাছাড়া সিনেমা হলের পপকর্ন থেকে শুরু করে ব্রেকফাস্টের সাহেবি কেতার কর্নফ্লেক্স বা রান্নায় দেওয়ার কর্নফ্লাওয়ার, এইসব কিছুর মূলেই কিন্তু রয়েছে ভুট্টা। তবে ভুট্টা খেতে ভাল লাগলেও আপনারা কি জানেন, ভুট্টার নানা উপকারিতার কথা? সর্বোপরি ভুট্টা ফাইবারে ভরপুর। আর ভুট্টায় থাকা এই ফাইবার কিন্তু শরীরের নানা রোগকে দূরে থাকতে সাহায্য করে। আজ জেনে নেওয়া যাক ফাইবারে সমৃদ্ধ ভুট্টা কেন খাবেন, সে কথা।

ভুট্টার জন্ম কোথায়

ভুট্টার বৈজ্ঞানিক নাম জিয়া মেইস। বেশিরভাগ ঐতিহাসিকের মতে, ভুট্টাগাছের আদি বাসস্থান মেক্সিকোতে। আজ থেকে প্রায় ৯০০০ বছর আগে সেখানে ভুট্টাগাছের অস্তিত্বের কথা পাওয়া যায়। এরপর দীর্ঘ কয়েক হাজার বছর পর স্পেনীয়দের হাত ধরে ভুট্টা ছড়িয়ে পড়ে ইউরোপ তথা সমগ্র পৃথিবীতে।

ফাইবারে সমৃদ্ধ ভুট্টা

ভুট্টা খেতে যেমন সুস্বাদু, তেমনই এতে প্রচুর পুষ্টিকর উপাদান রয়েছে। উচ্চ মাত্রায় প্রোটিন ও কার্বোহাইড্রেটের পাশাপাশি এতে থাকে প্রচুর পরিমাণে ডায়েটারি ফাইবার। এছাড়া ভুট্টায় ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ইত্যাদি থাকে। শরীরে প্রয়োজনীয় ভিটামিন এ, বি৩, ফোলেট ইত্যাদির যোগান দিতেও ভুট্টা খুব কার্যকরী। তবে সমস্ত পুষ্টিগুণের সঙ্গে ভুট্টায় ফাইবারের উপস্থিতি কিন্তু ভুট্টায় আলাদা মাত্রা যোগ করে।

ভুট্টার ফাইবার কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে

যে-কোনও ফাইবার যুক্ত খাদ্যই আপনাকে কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। ভুট্টাও এর ব্যতিক্রম নয়। মোটে এককাপ ভুট্টায় থাকা ফাইবার আমাদের প্রয়োজনীয় দৈনিক ফাইবারের প্রায় ১৮.৪%-এর যোগান দেয়। আর মাঝারি মাপের একবাটি পপকর্নে দৈনিক প্রয়োজনীয় পরিমাণের প্রায় ৪২% (পুরুষদের ক্ষেত্রে) এবং ৬৪% (মহিলাদের ক্ষেত্রে) যোগান দেয়। ভুট্টায় প্রধানত হেমিসেলুলোজ, সেলুলোজ জাতীয় ফাইবার থাকে এবং এগুলি অদ্রবণীয় প্রকৃতির।

যাদের হজমের সমস্যা রয়েছে, খাবার খাওয়ার পর যাদের নিয়ম করে হজমের ওষুধ খেতে হয়, বা কোষ্ঠকাঠিন্যের জ্বালায় কষ্ট পাচ্ছেন, তাঁরা ভুট্টার অদ্রবণীয় প্রকৃতির ফাইবারে উপকার পেতে পারেন। এই ফাইবার মলের পরিমাণ বাড়ায় এবং মলকে নরম করে মলের নিয়মিত নিষ্কাশনে সহায়তা করে। এছাড়া ডায়েরিয়া, পেটের গণ্ডগোলে যারা ভোগেন, তাঁরাও কিন্তু ভুট্টা খেতে পারেন। অনেকসময় গর্ভাবস্থায় মহিলারা কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভোগেন। তাঁরা কিন্তু খাদ্যতালিকায় ভুট্টা রাখুন। ভুট্টাদানার স্যালাড, কর্নফ্লেক্স, পপকর্ন খান। দেখবেন, সকালের চিন্তা একেবারে মাথা থেকে বেরিয়ে গিয়েছে!

হজমের নানা সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে কোলন ক্যানসারের সম্ভাবনা বাড়ে। নিয়ম করে ভুট্টা খেলে আপনি সেটিকেও দূরে রাখতে পারবেন। এছাড়া ভুট্টার ফাইবার ওজনকে নিয়ন্ত্রণে এবং পেট ভর্তি রাখতেও সহায়ক। ২০১১-র এক গবেষণা অনুযায়ী, ডায়েটারি ফাইবার অন্যান্য অনেক সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি প্রি-ম্যাচিয়োর ডেথ, হৃদরোগ, শ্বাসজনিত অসুখও প্রতিরোধ করে।

ভুট্টার আরও গুণ

শুধু তাই না, ভুট্টা আমাদের আরও নানা রোগকে দূরে রাখতে সহায়তা করে। ভুট্টার কর্ন অয়েল রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হৃদরোগের সম্ভাবনা কমায়। হলুদ ভুট্টায় থাকে প্রচুর পরিমাণ বিটা-ক্যারোটিন। এটি চোখের দৃষ্টি ভাল রাখে এবং ত্বকের সমস্যাকে দূরে রাখে। এছাড়া বিটা-ক্যারোটিন শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং নানারকম রোগ প্রতিরোধ করে।

ভুট্টায় থাকা ভিটামিন বি১২, ফলিক অ্যাসিড এবং আয়রন শরীরে লোহিত রক্তকণিকার উৎপাদন বৃদ্ধি করে এবং অ্যানিমিয়া বা রক্তাল্পতার সম্ভাবনা দূর করে। ফলে যে-সমস্ত মহিলারা রক্তাল্পতার সমস্যায় ভুগছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে ভুট্টা সত্যিই খুব কার্যকরী একটি প্রাকৃতিক খাদ্যোপাদান হতে পারে। এমনকী, গর্ভাবস্থাতেও আপনার বন্ধু হতে পারে ভুট্টা! কারণ এর ফলিক অ্যাসিড, জিয়াজ্যানথিন এবং প্যাথোজেনিক অ্যাসিড গর্ভাবস্থায় শিশুদের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা দূর করে। রোজ-রোজ আয়রন ট্যাবলেট না খেয়ে আপনারা এবার ভুট্টাদানাকে খাদ্যতালিকায় রাখতেই পারেন।

আর যারা অতিরিক্ত রোগা? রাস্তায় বেরলে লোকজনের সামনে যারা নিজেদের চেহারা নিয়ে হীনম্মন্যতায় ভোগেন? তাঁরা এবার ওজন বাড়ানোর নানারকম ক্ষতিকর সাপ্লিমেন্টের বদলে ভুট্টায় ভরসা রেখে দেখুনই না! এতে থাকা ক্যালোরি আপনার ওজনকে পুষ্টিকরভাবে বাড়িয়ে সুন্দর চেহারার অধিকারী করে তুলবে।

ভুট্টা খান বুঝেশুনে

তবে এত উপকারিতা থাকলেও ভুট্টা কিন্তু বুঝেশুনেই খাওয়া উচিত। আলুর মতো এতে প্রচুর পরিমাণে শর্করা ও কার্বোহাইড্রেট থাকে, যা আপনার ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা বাড়াতে পারে। এছাড়া এতে কিছু অ্যান্টি-নিউট্রিয়েন্ট থাকে, যা আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের শোষণে বাধা দেয়। তাই ভুট্টা খেলেও বাড়াবাড়ি না করাই ভাল। পরিমাণ মেপে ভুট্টা খান। তবেই সেটি যথার্থ কাজ দেবে।