বাংলাদেশকে তথ্যপ্রযুক্তি উন্নয়নে সাহায্য় করবে বিশ্বব্যাংক

Tamalika Basu ২৭-জানু.-২০২০
Teknologi hologram
Thumb up sign hologram over working cpu in background. Like hand symbol, success and social media sign. Futuristic over circuit board 3d illustration.

বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন ও বিকাশে সহায়তা করবে দাতা সংস্থা বিশ্বব্যাংক। সোমবার বাংলাদেশ, ভুটান ও নেপালের জন্য নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি মিয়াং টেম্বন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সাথে সাক্ষাৎ করে এ কথা বলেন।

আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে প্রতিমন্ত্রীর দপ্তরে এই সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে উভয়ে তথ্যপ্রযুক্তি খাত, বিশেষ করে আইটি ও আইটি শিল্পভিত্তিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। তারা সরকারি বিভিন্ন সেবার সক্ষমতা বৃদ্ধি, প্রশিক্ষণ ও নীতি-কৌশল প্রণয়নের জন্য ‘ইন্টিগ্রেটেড ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ‌্যান্ড ইকোনমি’ শীর্ষক প্রকল্প নেয়ার বিষয়ে সম্মত হন।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী এ সময় দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সর্বশেষ অগ্রগতি কান্ট্রি ডিরেক্টরের নিকট তুলে ধরে বলেন, সরকারের বিভিন্ন কার্যকর পদক্ষেপে ই-গভর্নমেন্ট বাস্তবায়নে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে।

বাংলাদেশ বিশ্ব ই-গভর্নমেন্ট উন্নয়ন সূচকে ২০১৮ সালে ৯ ধাপ এগিয়ে ১১৫তম অবস্থানে পৌঁছেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ২০২০ সালে ৯৯তম এবং ২০২৩ সালে সিঙ্গেল ডিজিটে পৌছানোর লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে।

এ সময় বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর বলেন, বাংলাদেশের আইসিটি খাতের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। তিনি বিগত ১১ বছরে আইসিটি খাতে বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করেন। তিনি মানবসম্পদ উন্নয়ন, আইটি, আইটি ইন্ডাস্ট্রির বিকাশে কর্মসংস্থান ও তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক সেবার মান বৃদ্ধিতে প্রকল্প সহায়তার আশ্বাস দেন।

এছাড়াও তিনি আওটি, এআই, সাইবার সিকিউরিটি বিষয়ে সক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করার অভিমত ব্যক্ত করেন। তিনি এ সময় এলআইসিটি প্রকল্পের সফল সমাপ্তিতে সন্তোষ প্রকাশ করেন। বৈঠকে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেবসহ আইসিটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।