বাংলাদেশে ওশান ডান্স ফেস্টিভ্যাল নভেম্বরে

সৃজনশীল Omar Faruque ১৯-সেপ্টে.-২০১৯

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক নৃত্য উত্সব। বিশ্বব্যাপী নৃত্যশিল্পীদের সংগঠন দ্য ওয়ার্ল্ড ডান্স অ্যালায়েন্স (ডব্লিউডিএ) তাদের বার্ষিক উত্সবের আয়োজন এবার করছে বাংলাদেশে। এবারের উত্সবের বিষয় ‘দূরত্বের সেতুবন্ধ’। ২২ থেকে ২৫ নভেম্বর ‘ওশান ডান্স ফেস্টিভ্যাল’ নামের দ্বি-বার্ষিক এ উত্সবে বিশ্বের ১৫টি দেশ থেকে প্রায় ১৫০ নৃত্যশিল্পীর অংশগ্রহণ করবে। কক্সবাজারের সমুদ্রসৈকতে অনুষ্ঠিত হবে চারদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক নৃত্য উত্সব। এতে পরিবেশিত হবে বাংলাদেশ, এশিয়া ও এশিয়ার প্রশান্তমহাসাগরীয় অঞ্চলের বিভিন্ন ঘরানার নৃত্য। সেইসঙ্গে উত্সবে যোগ দেবেন বাংলাদেশের নৃত্যশিল্পীসহ বিশ্বের নানা প্রান্তের নৃত্যশিক্ষক, কোরিওগ্রাফার, গবেষকরা। ওয়ার্ল্ড ডান্স অ্যালায়েন্সের বাংলাদেশ শাখা নৃত্যযোগ এ উত্সবের আয়োজক। এতে সহযোগী হিসেবে রয়েছে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় ও ট্যুরিজম বোর্ড। আয়োজকরা জানান, অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের মাধ্যমে বিনামূল্যে এই উত্সবে সবাই অংশ নিতে পারবেন।

এ উপলক্ষ্যে গতকাল সোমবার গুলশানের একটি হোটেলে এবারের উত্সবের লোগো উন্মোচন করা হয়। আর এ লোগো উন্মোচন পর্ব শুরু হয় শিল্পীদের অনবদ্য এক নৃত্য পরিবেশনার মধ্য দিয়ে। উত্সবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন উত্সবের অন্যতম উদ্যোক্তা ওয়ার্ল্ড ডান্স অ্যালায়েন্সের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের সাধারণ সম্পাদক নৃত্যশিল্পী লুবনা মারিয়াম ও স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য জুডিথা অল মাকার। আরো বক্তব্য রাখেন নৃত্যশিল্পী শিবলী মোহাম্মদ, চ্যানেল আইয়ের প্রতিনিধি অভিনেতা শহিদুল আলম সাচ্চু, ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান মাত্রার পরিচালক সানাউল আরেফিন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন নৃত্যযোগের সভাপতি ও নৃত্যশিল্পী অনিসুল ইসলাম হিরু।

উত্সবে ভিডিও বার্তার মাধ্যমে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করবেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নৃত্যশিল্পী আকরাম খান, ভারতীয় শিল্পী লীলা স্যামসন, ওয়ার্ল্ড ডান্স অ্যালায়েন্সের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের সভাপতি ড. ঊর্মিমালা সরকার, বাংলাদেশের শিল্পী ও ডব্লিউডিএ এশিয়া প্যাসিফিকের সাধারণ সম্পাদক লুবনা মারিয়াম। সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, এ উত্সবে সারাদিন ধরে ওয়ার্ল্ড ডান্স ফেস্টিভ্যালের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। আর বিকাল থেকে সিগাল সমুদ্রসৈকতে শুরু হবে নৃত্য পরিবেশনা। প্রথম দিন হবে লোকনৃত্য পরিবেশনা। দ্বিতীয় দিন থাকবে আধুনিক সমকালীন নৃত্য পরিবেশনা। তৃতীয় থাকবে শাস্ত্রীয় নৃত্য আর শেষ দিনে ডান্স ড্রামা পরিবেশিত হবে। এছাড়া, নৃত্য উত্সবের আগে কানাডার নৃত্য পরিচালক সাশা নৃত্যশিল্পীদের নিয়ে ১৫ দিনের একটি কর্মশালা পরিচালনা করবে। সেই শিল্পীদের নিয়ে একটি ডান্স ড্রামা পরিবেশিত হবে এ উত্সবে।

Source: The Bangladesh Observer

Photo: Collected