বাংলাদেশে পাচার হওয়ার আগেই রাজস্থান উদ্ধার স্বর্ণে লেখা কুরআন

ধর্ম Tamalika Basu ০৪-ফেব্রু.-২০২০
gold engraved holy quran
ID 27602020 © Hassanmohiudin | Dreamstime.com

ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজস্থান রাজ্যে উদ্ধার করা হয়েছে স্বর্ণে লেখা মুঘল সম্রাট আকবরের আমলের একটি পবিত্র কুরআন এবং এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে ১ জনকে। আনুমানিক ১৬ কোটি রুপি দামের কুরআনের এই কপিটি বাংলাদেশে পাচার করার চেষ্টা হচ্ছিল বলে জানিয়েছে রাজস্থান পুলিশ।
তবে সেটি বাংলাদেশে কার কাছে পাচার করার চেষ্টা করা হচ্ছিল, তা জানতে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে জেরা করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে ১ হাজার ১৪ পাতার ওই কুরআনটি গত বছর ডাকাতি করে ছিনিয়ে নেয় তিন ব্যক্তি। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে দু’জনকে আগেই গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। আর বৃহস্পতিবার কুরআনসহ গ্রেফতার করা হয় তৃতীয় ব্যক্তিকে।
জয়পুর উত্তরের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার রাজীব পাচার জানান, গত বছর ভিলওয়ারা জেলার এক বাসিন্দা যোগেন্দ্র সিং মেহতা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছিলেন যে, তার হেফাজতে থাকা একটি বহুমূল্য কুরআনের কপি কয়েক ব্যক্তি ছিনতাই করে নিয়ে গেছে।
‘মেহতার পূর্বপুরুষেরা সম্রাট আকবরের কাছ থেকে দান হিসাবে ঐতিহাসিক মলগড় কেল্লা পেয়েছিলেন। সেখানেই স্বর্ণাক্ষরে লেখা ওই কুরআনের কপিটি তিনি পান। বন্ধু ও আত্মীয়স্বজনের মাধ্যমে তিনি সেটি বিক্রি করে দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন’, সংবাদ মাধ্যমকে জানান পুলিশ আধিকারিক পাচার। তিনি আরও বলেন, ‘কুরআনটি কেনার নাম করে ফাঁকা জায়গায় ডেকে নিয়ে গিয়ে সেটি ছিনতাই করা হয়। ওই ঘটনার পরে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। কিন্তু কোরআনের কপিটি তখন পাওয়া যায়নি’।
কয়েকদিন আগে সূত্র মারফত পুলিশ জানতে পারে যে, একটি বহুমূল্য কুরআন কেউ বিক্রি করার চেষ্টা করছে। বিশেষ তদন্ত দল তৈরি করে পুলিশই ক্রেতা সেজে যোগাযোগ করে ভাঁওয়ারি মীনা নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে। বৃহস্পতিবার সে ওই কুরআনটি ক্রেতারূপী পুলিশের কাছে বিক্রি করতে এলে হাতেনাতে তাকে ধরা হয়। মি. পাচার জানান, ‘জেরা করতেই ভাঁওয়ারী মীনা জানায় যে, সেটি বাংলাদেশে ১৬ কোটি রুপিতে বিক্রি করার চেষ্টা করছিল সে। তবে সেদেশে কার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল, সেটা এখনও বলেনি’। এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আগেই গ্রেফতার হওয়া তার দুই সাথীকেও জেল থেকে নিয়ে এসে এক সঙ্গে বসিয়ে জেরা করা হবে।