বাজারে পেয়াঁজের আগুন দাম, টবেই লাগিয়ে ফেলুন পেয়াঁজ গাছ

বাংলাদেশ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করলেও এখনও বাজারে ঊর্ধ্বমুখী পেঁয়াজের দাম। ৮০ থেকে শুরু করে ২৫০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। বাড়তি দাম গোনার কারণে পেঁয়াজ কিনতে গিয়ে মাথায় হাত ক্রেতাদের।

খাদ্য তালিকায় পেঁয়াজ একটি অপরিহার্য উপাদান। পেঁয়াজ সাধারণত মসলা হিসাবে ব্যবহৃত হলেও সবজি ও স্যালাড হিসাবেও পেঁয়াজ ব্যবহার প্রচলিত আছে। পেঁয়াজ কেবল খাদ্যদ্রব্যকে আকর্ষণীয় ও খাদ্যের স্বাদই বৃদ্ধি করে না, খাদ্যের পুষ্টিগুণও বৃদ্ধি করে এবং এর ঔষধিগুণও অপরিসীম। তবে হঠাৎ পেঁয়াজের দাম অতিরিক্ত হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ মানুষজন। তাই ঘরের বারান্দায় বা ছাদে টবে পেঁয়াজ চাষ করার পদ্ধতি দেওয়া হল পাঠকদের জন্য।

কোথায় করবেন পিয়াঁজ চাষ
বাসার বারান্দায় বা ছাদে এমন একটি স্থান বেছে নিন যেখানে প্রচুর আলো বাতাস পায়।

পেয়াঁজ চাষের জন্য টব বা প্লাস্টিক অথবা কাঠের কনটেইনারও ব্যবহার করা যায়। মাঝারি সাইজের একটি টব বেছে নিন। প্লাস্টিকের বালতিতেও করতে পারেন। মাঝারি আকৃতির টবে ৫০টি পিয়াজ গাছের চাষ করা সম্ভব। একান্ত জায়গার অভাব থাকলে ছোট টবেও কাজ চালানো যেতে পারে। মনে রাখবেন প্লাস্টিক কন্টেইনার ব্যবহার করলে অতিরিক্ত পানি বের করে দেয়া জন্য আগেই কন্টেইনারটিতে কয়েকটি ছোট ছিদ্র করে নিতে পারেন।

কীভাবে ফলাবেন পেয়াঁজ

পেয়াঁজ ফলনের জন্য আলাদা একটি পাত্রে বেলে ও দোআঁশ মাটি মিশিয়ে নিন। এবার টব ভর্তি করে মাটি দিন। বাজার থেকে পেঁয়াজ কিনে আনুন। শিকড় বেরোনো ও শিকড় না বেরোনো দুপ্রকার পেঁয়াজ। শিকড় না বেরোনো পেঁয়াজ হলে তার মুখ ও পেছনের দিকের সামান্য অংশ কেটে ফেলুন। শিকড় বেরোনো পেঁয়াজের ক্ষেত্রে তার প্রয়োজন নেই। এবার টব ভর্তি মাটির মধ্যে আঙুল দিয়ে গর্ত করে ওই পেঁয়াজ ঢুকিয়ে দিন। ওপর দিয়ে গুঁড়ো মাটির হালকা আস্তরণ দিতে পারেন। এবার হালকা হাতে অল্প করে পানি ছড়িয়ে দিন। পুরো প্রক্রিয়াটি শেষ হলে সূর্যের আলো লাগে এমনই একটি জায়গায় ওই টবটি সরিয়ে রাখুন।

৬ থেকে ১০ দিন পর দেখবেন ওই টবে পুঁতে রাখা পেঁয়াজ থেকে পাতা বেরিয়েছে। পেঁয়াজ পাতা খাওয়ার ইচ্ছা হলে তা আপনি কেটে নিতে পারেন।ওই গাছের ঘাড় বা গলা শুকিয়ে ভেঙে হেলে পড়লে বুঝতে হবে পেঁয়াজ উত্তোলনের সময় হয়ে গেছে। পেঁয়াজ টবে লাগার ১১০-১২০ দিনের মধ্যে তা উত্তোলনের সময় চলে আসে। পেঁয়াজ সংগ্রহের ১৫ থেকে ২০ দিন আগে গাছের ডগা ভেঙ্গে দিলে ফলন ভাল পাওয়া যায়।

মনে রাখবেন দোআঁশ ও বেলে দোআঁশ মাটি পেঁয়াজ চাষের জন্য উত্তম। পেঁয়াজ সাধারণত ঠাণ্ডা জলবায়ুর উপযুক্ত ফসল। যদি পেঁয়াজ চাষ করার সময় তাপমাত্রা বেশি হয় তাহলে উক্ত পেঁয়াজ ঝাঁঝালো হবে। তবে মনে রাখবেন এঁটেল মাটিতে পেঁয়াজের চাষাবাদ করা যায় না। মাটি অবশ্যই উর্বর হতে হবে।

বিশেষ নোট
পেঁয়াজের চাষ শুধু শীতকালেই হয় না এই পদ্ধতিতে বর্ষাকালেও চাষ করা যায়। এটা টবে চাষের পদ্ধতি, তাই পোকা-মাকড় সংক্রমণ, বা চিকিৎসা ইত্যাদি এড়িয়ে যাওয়া হয়েছে। যেহেতু আপনি আপনার বাসার ছাদে বা বারান্দায় করবেন, তাই তা অবাণিজ্যিক চাষ। আর সেই জন্য কোন সমস্যা হলে তার চিকিৎসা করতে হলে উল্টো আরো ব্যয় বৃদ্ধি পেতে পারে। যদি বড় ধরনের ঝামেলা হয়, নতুন ভাবে চাষ করাই সঠিক সিদ্ধান্ত হবে।