বিজ্ঞান আমাদেরকে একজন ভালো মুসলিম হতে সাহায্য করতে পারে

ID 143583041 © Leo Lintang | Dreamstime.com

আমাদের বুদ্ধি এবং আমাদের অন্যান্য অনুষদগুলি সবকিছুই সীমাবদ্ধ, যেখানে আল্লাহ হচ্ছেন সীমাহীন।

আমি বেশ কয়েক দশক ধরে বিজ্ঞান সম্পর্কিত বিষয়গুলি নিয়ে লিখছি। একটি বিষয় যা নিয়ে আমি প্রায়শই কাজ করি তা হল ইসলাম ও বিজ্ঞানের মধ্যে সম্পর্ক। এই সম্পর্কের বিভিন্ন পথ রয়েছে। আমি বিজ্ঞান এবং ইসলামের মধ্যে তুলনা করতে চাই না, অথবা একটিকে প্রমাণের জন্য অন্যটির দাবিও খণ্ডন করতে চাই না।

কুরআনের শিক্ষা অনুসারে মহাবিশ্বের প্রতিটি জিনিসই আল্লাহর নিদর্শন, আরবী ভাষায় যাকে ‘আয়াত’ বলা হয়। যেহেতু নিখিল বিশ্বের সবকিছুই আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন, তাই সমস্তকিছুই তাঁর নিদর্শন বহন করে, একজন সৃষ্টিকর্তকে নির্দেশ করে। কুরআনের অসংখ্য আয়াতে আল্লাহ আমাদেরকে তাঁর নিদর্শনগুলি প্রতিফলন করার জন্য আদেশ করেছেন যা প্রকৃতিতে, মেঘে, বৃষ্টিতে, গাছপালায়, প্রাণীদের উপরে ছড়িয়ে আছে। প্রকৃতিতে আল্লাহর এই লক্ষণগুলির প্রতিফলন এবং জ্ঞান অর্জন করার জন্যই বিজ্ঞান আমাদেরকে সাহায্য করতে পারে।। বিজ্ঞানকে সহজভাষায় বলতে গেলে, কোনো কিছু সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন। এবং কুরআনে আমাদেরকে ঠিক এই জিনিসটিই প্রতিফলন করার জন্য আদেশ করা হয়েছে, যা প্রকৃতিতে নিবিষ্ট আছে।

এখন, আপনি জিজ্ঞাসা করতে পারেনঃ আল্লাহ কেন তাঁর সৃষ্টির প্রতি আমাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চান? এর মূল কারণ হল আল্লাহর সত্তা আমাদের বোঝার বাইরে। আমাদের বুদ্ধি এবং আমাদের অন্যান্য অনুষদগুলি সবকিছুই সীমাবদ্ধ, কিন্তু আল্লাহ হচ্ছেন সীমাহীন। এবং যা সীমাহীন তা সীমাবদ্ধ জ্ঞান দ্বারা উপলব্ধি করা যায় না। তাহলে কিভাবে আমরা আমাদের রবকে চিনতে পারব? আমার হৃদয় কিভাবে এই সত্যের আহ্বান জানাবে যে, ‘আল্লাহ সর্বাধিক মহান’ (আল্লাহু আকবর!)? আমি যখন ছোট ছিলাম তখন আমাকে ‘আল্লাহু আকবার’ শব্দটি শেখানো হয়েছিল, তবে এটি তখন আমার জন্য একটি আবেগময় স্লোগান ছিল যা আমি সত্যিই তখন বুঝতে পারি নি যে, এই শব্দটি কত মহান। এই শব্দটি দ্বারা আসলে কী বোঝায় তা আমি কীভাবে জানতে পারি? আমি কীভাবে এটি উপলব্ধি করতে পারি? এর উত্তর হলঃ আমি যখন আল্লাহর বিভিন্ন আশ্চর্যজনক এবং রহস্যজনক সৃষ্টিকে দেখি, তখন আল্লাহর মহিমা, তাঁর গৌরব, তাঁর শিল্প, তাঁর শক্তি আমার উপলব্ধি হয়! এবং তারপরে আমি সত্যই হৃদয় থেকে অনুভব করতে পারি, ‘আল্লাহু আকবর!’।

আল্লাহ চান যে আমরা আল্লাহর সৃষ্টিকে বোঝার মাধ্যমে আল্লাহকে বোঝার চেষ্টা করি। এভাবে দেখা যায়, বিজ্ঞান বিভিন্ন জিনিসের জ্ঞান অর্জন, আল্লাহর পরিচয় বা মারিফাত-এ-ইলাহী বোঝার একটি উপায়। ইসলাম এবং বিজ্ঞানের মধ্যে যে সম্পর্কটিকে আমি অনুসরণ করি এটিই হল সেই পদ্ধতি। এইভাবে, বিজ্ঞান একজন মানুষকে ভাল মুসলিম হিসেবে গড়ে তুলতে পারে, আল্লাহ সম্পর্কে সচেতন এমন একজন ব্যক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে পারে যে আল্লাহর আদেশের কাছে পুরোপুরি আত্মসমর্পণ করে, যেমন অন্যান্য সৃষ্টিগুলি করে থাকে।

-লিখেছেন মোহাম্মদ আসলাম পারভেজ