শরিয়াহ সম্মত ওয়েব পরিবেশ. আরওসন্ধানকরুন

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি, মৃত ৩০

বিশ্ব Tamalika Basu ২৯-জুন-২০২০
Rohingya boat
ID 117746322 © Rokib Hasan | Dreamstime.com

বাংলাদেশে ভয়াবহ ফেরি দুর্ঘটনা। মৃত্যু হল কমপক্ষে ৩০ জনের। আরও ১২ জনকে এখনও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।

উদ্ধারকারীরা জানিয়েছেন, সোমবার সকালে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় অন্য একটি জলযানের সঙ্গে ধাক্কা লাগে ওই ফেরির। দমকল কর্মী এনায়েত হোসেন জানিয়েছেন, ‘নৌকাটি উলটে গিয়েছে। তার ভেতর থেকে এখনও পর্যন্ত ৩০টি দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।’ ওই ফেরিতে প্রায় ৫০ জন যাত্রী ছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। বাকিদের খোঁজে ডুবুরি নামিয়ে চলছে তল্লাশি।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, রাজধানীর সদরঘাটের বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চ ডুবির ঘটনায় মৃত প্রত্যেক যাত্রীর পরিবারকে দেড় লাখ টাকা ও তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যেকের দাফনের জন্য ১০ হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

সোমবার ( ২৯ জুন) লঞ্চ দুর্ঘটনায় উদ্ধার কাজ চলাকালে তিনি সাংবাদিকদের এসব বলেন।

এছাড়া, সিসিটিভি ‍ফুটেজ দেখে মনে হচ্ছে এটি দুর্ঘটনা নয় হত্যাকাণ্ড বলেও জানান তিনি। বুড়িগঙ্গা নদীতে ‘মর্নিং বার্ড’ লঞ্চডুবির ঘটনাটি পরিকল্পিত হতে পারে। এ ঘটনায় যেই দায়ী হোক না কেন, তাদের শাস্তির আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে, লঞ্চ ডুবির ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি গঠন করেছেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। কমিটি আগামী সাত দিনের মধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দাখিল করবে। কমিটি দুর্ঘটনার কারণ উদঘাটন, দুর্ঘটনার জন্য দায়ি ব্যক্তি/সংস্থাকে সনাক্তকরণ এবং দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় উল্লেখ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশ প্রদান করবে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) মোঃ রফিকুল ইসলাম খানকে আহবায়ক এবং বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (নৌ নিরাপত্তা) মোঃ রফিকুল ইসলামকে সদস্য সচিব করে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন-নৌপরিবহন অধিদফতরের চীফ নটিক্যাল সার্ভেয়ার ক্যাপ্টেন জসিম উদ্দিন সরকার, বিআইডব্লিউটিসি’র প্রধান প্রকৌশলী, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের নেভাল আর্কিটেকচার এ্যান্ড মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক পর্যায়ের একজন প্রতিনিধি, ফায়ার সার্ভিস অধিদফতরের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধি, নৌপুলিশের একজন উপযুক্ত প্রতিনিধি।

কিছুবলারথাকলে

যোগাযোগকরুন