ভারতের পদ্ম ভূষণ ও পদ্মশ্রী পদক পেলেন দুই বাংলাদেশি

বিশ্ব Tamalika Basu ২৬-জানু.-২০২০
Syed moazzam Ali and Enamul Haque

বাংলাদেশের দুই বিশিষ্ট ব্যক্তিকে পদ্মভূষণ ও পদ্মশ্রী পদকে ভূষিত করেছে ভারত। দেশটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা ‘পদ্ম ভূষণ’ পাচ্ছেন প্রয়াত বাংলাদেশি কূটনীতিবিদ সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ পদক পদ্মশ্রী পাচ্ছেন বিশিষ্ট জাদুঘরবিদ প্রত্নতত্ত্ববিদ ও গবেষক ড. এনামুল হক।

আজ রোববার ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস। তার আগেরদিন শনিবার এ বছরের পদ্ম সম্মান প্রাপকদের নাম ঘোষণা করে ভারত সরকার। প্রতি বছরের মতো এবারও মার্চ-এপ্রিল মাসে রাষ্ট্রপতি ভবনে এ পদক প্রদান করা হবে।

এ বছর মোট ১৪১ জনকে পদ্ম সম্মান দেওয়া হচ্ছে। পদ্মবিভূষণ পাচ্ছেন ৭ জন, পদ্মভূষণ ১৬ জন এবং পদ্মশ্রী পাচ্ছেন ১১৮ জন।

মোয়াজ্জেম আলী ছিলেন সাবেক পররাষ্ট্র সচিব। তিনি বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। গত ৩০ ডিসেম্বর মারা যান এই কূটনীতিক। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত দিল্লিতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের দায়িত্বে ছিলেন। তাকে মরণোত্তর পদ্মভূষণ প্রদান করা হবে।  ড. এনামুল হক বাংলাদেশের বিশিষ্ট জাদুঘরবিদ। জাতীয় জাদুঘরের একেবারে শুরুর দিকে প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। আহসান মঞ্জিলকে জাদুঘরে পরিণত করার মূল উদ্যোক্তাও তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতক ও ইতিহাস-প্রত্নতত্ত্বে স্নাতকোত্তর করেন এনামুল হক। তিনি যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভের পর প্রত্নতত্ত্ব নিয়ে গবেষণায় যুক্ত হন। বিস্মৃতপ্রায় ঢাকা জাদুঘরকে ১৯৮৩ সালে বাংলাদেশের জাতীয় জাদুঘরে রূপান্তরেও তার ছিল মূল ভূমিকা। জাদুঘর আন্দোলনের পথিকৃৎ এনামুল হক আহসান মঞ্জিলকে জাদুঘরে পরিণত করারও মূল উদ্যোক্তা। পাশাপাশি গীতিনাট্য রচনায়ও রয়েছে অগ্রণী ভূমিকা।