ভারত সফরে নাও যেতে পারেন সাকিব!

Sakib Al Hasan

এগারো দফা দাবিতে নামা ক্রিকেটারদের ধর্মঘট শেষে স্বাভাবিক কর্মকান্ড শুরু হয়েছে পাঁচ দিন হলো। এরই মধ্যে চলছে জাতীয় ক্রিকেট লিগ। ভারত সফরে অনুশীলনও শুরু করেছেন স্কোয়াডে থাকা ক্রিকেটাররা। তবুও কেমন একটা অস্বস্তির ভাব সর্বত্র। এরই মধ্যে ভারত সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন তামিম ইকবাল। খবর বেড়িয়েছে, ভারত সফরে হয়তো খেলবেন না সাকিব আল হাসান ও!

এমন ধারণা খোদ নাজমুল হাসান পাপনের। ক্রীড়া বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ইএসপিএন ক্রিকইনফো একটি জাতীয় দৈনিকের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, বিসিবি সভাপতি মনে করেন ভারত সিরিজে সাকিব ছাড়াও আরো কিছু ক্রিকেটার না গেলে অবাক হওয়ার থাকবে না।

বিসিবি বস সেই সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি হলফ করে বলতে পারি, ওরা কয়েকজন ভারত সফরে যাবে না। আর আমাদের যখন কিছুই করার থাকবে না, তখন ওরা বিষয়টি আমাদের জানাবে।’

সাকিবের ভারত সফরে যাওয়া না যাওয়া নিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আমি ঠিক জানি না। সাকিবকে আলোচনার জন্য ডেকেছি। দেখি সে কী বলে। তবে শুধু সাকিব নয়, আরও ক’জনকে নিয়ে বলছি। আমার কাছে তথ্য আছে যে অন্যরাও ভারত সফরে নাও যেতে পারে।’

ভারত সফরে না যাওয়ার জন্য ক্রিকেটাররা অসময়ে ধর্মঘট করেছে বলে মনে করেন পাপন। দ্রুতই সমাধান হওয়ায় ভারত সিরিজ থেকে নাম প্রত্যাহার করার জন্য তারা নতুন নতুন অজুহাত দাঁড় করাবে বলে দাবি করেন তিনি। যদিও তার পাওয়া তথ্যগুলো বিশ্বস্ত সূত্র থেকে পাওয়া নয় বলে উল্লেখ করেছেন।

তামিমের উদাহরণ দিয়ে বিসিবি প্রেসিডেন্ট বলেন, তামিম শুধু শেষ টেস্ট থেকে ছুটি নিতে চেয়েছিল। কিন্তু এখন সে পুরো সিরিজ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে। তিনি শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, এখন যদি সাকিব ৩০ অক্টোবর জানায়, সে যাবে না। তাহলে আমরা কী করবো। অধিনায়ক কোথায় পাবো?

এসব ছাড়া সাকিবের টেলকো কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি বেআইনি বলে উল্লেখ করেন নাজমুল হাসান পাপন। জানুয়ারিতে ক্রিকেট দলের নতুন স্পন্সর স্বত্ত্বর জন্য দরপত্র আহ্বান করবে বিসিবি। সাকিবের চুক্তির দরুণ টেলকো কোম্পানিগুলো বিসিবির সঙ্গে চুক্তি করতে চাইবে না। কিংবা চুক্তি করলেও কম টাকা দিতে চাইবে বলে উল্লেখ করেন বিসিবি বস। এসব কোন কিছু বরদাস্ত করা হবেনা বলেও জানান তিনি।

ক্রিকেটের আকাশে ঘনীভূত হতে থাকা এ মেঘ যত দ্রুত কেটে যাবে, দেশের ক্রিকেটে মঙ্গলটাও হবে ততো দ্রুত।

Source: Daily Bangladesh.

Photo: Collected