মৃত্যু মিছিল নিউ ইয়র্কে

Tamalika Basu ৩০-মার্চ-২০২০
Coronavirus
ID 170898304 © Francesco Alessi | Dreamstime.com

বর্তমানে করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যের সবগুলোতেই করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। তবে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু হচ্ছে নিউ ইয়র্কে। এক মাস আগে নিউ ইয়র্কে প্রথম করোনার উপস্থিতি ধরা পড়ে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ওই অঙ্গরাজ্যে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছেই। সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে গেছে। স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত শুধুমাত্র নিউ ইয়র্ক শহরে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭৬ জনে। অপরদিকে পুরো নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১ হাজার ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। অর্থাৎ সেখানে প্রতি ৯ মিনিটে একজন করে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে।

অপরদিকে, নভেল করোনাভাইরাসে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু এক লাখ বা তারও বেশি হতে পারে বলে প্রথমবারের মতো স্বীকার করেছেন প্রেসিডেন্টে ডনাল্ড ট্রাম্প। রবিবার সন্ধ্যায় হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে করোনাভাইরাস নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প একথা বলেন বলে জানিয়েছে সিএনএন।মৃত্যুর সংখ্যা এক লাখ বা এর নিচে থাকলে ‘সম্মিলিতভাবে করা খুব ভাল কাজ হবে’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

গত ১ মার্চ নিউ ইয়র্কে ইরানফেরত একজন প্রথম করোনায় আক্রান্ত হয়। এর দু’দিন পরেই সেখানে দ্বিতীয় আক্রান্তের খবর পাওয়া যায়। এরপর থেকেই ওই অঙ্গরাজ্যে দ্রুত গতিতে করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ে। এদিকে, করোনার ‘হটস্পট’র হিসেবে নিউ ইয়র্ক, নিউ জার্সি এবং কানেক্টিকাটের কথা উল্লেখ করে ওই তিন অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনের ঘোষণা দিয়েছে ফেডারেল সরকার। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশেই এমন ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এদিকে ট্রাম্পের এমন নির্দেশের কারণে তাকে নিয়ে বেশ সমালোচনা হচ্ছে। অনেকেই বলছেন, এমন নির্দেশনার মাধ্যমে ট্রাম্প আসলে সবাইকে জানিয়ে দিচ্ছেন যে করোনা ভাইরাস কোথায় কোথায় আছে। নিউ ইয়র্কের গভর্নর অ্যান্ড্রিউ কুমোসহ বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের গভর্নর এভাবে কোয়ারেন্টাইন আরোপের বিরোধিতা করেছেন।