ম্যানচেস্টার সিটি তাহলে মেসির গন্তব্য, দাবি বিভিন্ন সংবাদ মহলে

বিশ্ব Tamalika Basu ২৭-আগস্ট-২০২০
Messi
ID 112227056 © Zeytun Images | Dreamstime.com

বার্সেলোনা ছাড়তে পারেন লিওনেল মেসি, এমন গুঞ্জন কদিন ধরেই বাতাসে ভাসছিল। এমনিতেই বার্সেলোনা বোর্ডের একের পর এক হঠকারী সিদ্ধান্তে বিরক্ত আর্জেন্টাইন তারকা এবার স্প্যানিশ লা লিগায় চির প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে শিরোপা খোয়ানো ও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৮-২ গোলে বিধ্বস্ত হওয়ার লজ্জার পরই হয়তো ঠিক করে রেখেছিলেন, আর নয়!

ক্লাবের সঙ্গে প্রায় দুই যুগের সম্পর্কের শেষ টেনে দিতে চাইছেন। ক্লাবকে এরই মধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, যেতে চাই। গতপরশু মাঝ রাতে এক ফ্যাক্স বার্তায় সেই বোমা ফাটিয়েছেন সময়ের সেরা তারকা। নতুন মৌসুম শুরুর আগে কাতালান ক্লাবটি ছাড়ার ইচ্ছার কথা জানিয়ে দিয়েছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর। পালাবদলের ডাক দেয়া বার্সার নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যানও বদলাতে পারেননি তার মন। তারপর থেকেই কাতালুনিয়ায় বার্সেলোনা জোজেপ মারিয়া বার্তোমেউর পদত্যাগ চেয়ে বিক্ষোভ করছেন সমর্থকেরা। মেসিভক্তরাও চাইছেন দলটির প্রাণভোমরা থেকে যাক প্রিয় দলে।

তবে সিদ্ধান্তটি যে খুব সহজ ছিল না মেসির জন্য সেটি কারোরই অজানা নয়। ২০০০ সালে আর্জেন্টিনার রোজারিও থেকে মাত্র ১৩ বছর বয়সে উচ্চতাজনিত হরমোন সমস্যা নিয়ে বার্সায় আসেন মেসি। শর্ত ছিল একটাই। তার সঠিক চিকিৎসা করা। সেই দায়িত্ব কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করে, বিশ্বখ্যাত সব চিকিৎসকের পরামর্শে পালন করে কাতালান জায়ান্টরা। আজ যে মেসি বিশ্ব ফুটবল শাসন করছেন তার কিছুটা হলেও কৃতিত্ব দিতে হবে স্প্যানিশ দলটিকে। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা বারবারই প্রকাশ করেছেন মেসিও। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপট আর দলের ভরাডুবির পেছনের বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিয়ে প্রিয় আঙিনা ক্যাম্প ন্যু ছাড়ার কঠোরতম সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন ফুটবল ইশ্বর।

কেউ তার পক্ষে বলছেন, কেউ বা বিপক্ষে। কেউ বলছেন, লিওর সিদ্ধান্তটা যথার্থ হয়েছে। কেউ আবার বার্সেলোনার এই কঠিন সময়ে তার ক্লাব ছেড়ে যাওয়ার সমালোচনা করছেন। কেউ-বা সামনে আনছেন বার্সেলোনায় তার বাকি থাকা চুক্তি ও সেটি নিয়ে সম্ভাব্য জটিলতাকে। তবে সবকিছু মিটিয়ে দিয়ে নিজের পরবর্তি গন্তব্য সম্পর্কেও সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন বলে সংবাদমাধ্যমে খবর।

দেশটির সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস মঙ্গলবার জানায়, মনস্থির করে ফেলেছেন বার্সেলোনা অধিনায়ক। তাই চুক্তির একটি ধারা সক্রিয় করে বিনা ফিতে ছাড়তে চাইছেন ন্যু ক্যাম্প! আর সেটি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দল ম্যানচেস্টার সিটি। ক্লাবটির কোচ পেপ গার্দিওলার সঙ্গে নাকি আগেই এ প্রসঙ্গে আলোচনা করেছেন বার্সা অধিনায়ক।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের এ সময়ে মেসির চড়া বেতন দেওয়ার মতো ক্ষমতা যে কয়টি ক্লাবের রয়েছে, তাদের মধ্যে অন্যতম সিটি। তাই রেডিও কাতালুনিয়ার সংবাদ উড়িয়ে দেওয়াও কঠিন। তারা জানিয়েছে, আগের সপ্তাহেই নিজের ভবিষ্যৎ সাবেক গুরু গার্দিওলার সঙ্গে আলোচনা করেন মেসি। আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের উত্থানের শুরুটা এ কোচের হাত ধরেই। তার অধীনে ২০০৮ সাল থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত বার্সায় খেলেছেন তিনি। বার্সেলোনা ছাড়লে তাকে নেওয়ার মতো আর্থিক সক্ষমতা সিটির রয়েছে কি-না, গার্দিওলার কাছে তা জানতে চেয়েছিলেন ৩৩ বছর বয়সী তারকা। সিটি কোচ তাকে আশ্বস্ত করেন। প্রয়োজনে ৩০০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করার সামর্থ্যরে কথা জানান। এরপরই না-কি বার্সাকে বিদায় বলার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেন মেসি। যদি সবকিছু ঠিক থাকে তবে স্পেনের গন্ডি পেরিয়ে খুব শিগগিরই ইংল্যান্ড মাতবে ফুটবল সৌন্দর্য্য।