SalamWebToday নিউজলেটার
সালামওয়েবটুডে থেকে সাপ্তাহিক নিবন্ধ পাওয়ার জন্য সাইন আপ করুন
আমরা দুঃখিত কোনো কারণে ত্রুটি দেখা গিয়েছে:
সম্মতি জানানোর অর্থ, আপনি Salamweb-এর শর্তাবলী এবং গোপনীয়তার নীতি মেনে নিচ্ছেন
নিউজলেটার শিল্প

লিঙ্কডইন-এ প্রফেশনাল প্রোফাইল বানানোর নিয়ম কী কী?

শিক্ষা ৩১ ডিসে. ২০২০
জানা-অজানা
লিঙ্কডইন
© Worawee Meepian | Dreamstime.com

এখন পড়াশুনো থেকে চাকরি অন্বেষণ সবকিছুর একটি সহজ উপায় হল ডিজিটাল মাধ্যম। এই মাধ্যমে নিজের প্রফেশনাল প্রোফাইল যদি তৈরি করতে পারেন তাহলে সহজে পাওয়া যায় চাকরির খোঁজ। লিঙ্কডইন এরকমই একটি ডিজিটাল মাধ্যম যা আপনার প্রফেশনাল প্রোফাইল তৈরি করতে সাহায্য করে।

ডিগ্রি থেকে চাকরি, আমাদের মধ্যবিত্ত সমাজে উত্তরণ এভাবেই ঘটে। যেই মুহূর্তে প্রথাগত পড়াশুনো শেষ হয় যায়, চাকরি পাওয়ার চিন্তা শুরু হয় আমাদের যুবসমাযের মধ্যে। সামাজিক ও পারিবারিক চাপের সঙ্গে যুক্ত হয় নিজের পায়ে দাঁড়ানোর ইচ্ছে।

সামাজিক ও পারিবারিক চাপ যে শুধু সদ্য পড়াশুনো শেষ করা ছাত্রছাত্রীদের হয় তা নয়। অনেকেই রয়েছেন যারা এক কেরিয়ার থেকে অপর কেরিয়ারে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তাদের ক্ষেত্রেও এই চাপ বেশ সমস্যার সৃষ্টি করে।

তবে, প্রফেশনাল প্রোফাইল মানে সেটি বানানোর কিছু নিয়ম রয়েছে। এমন কিছু টেকনিক রয়েছে যেগুলো মেনে চললে আপনার প্রোফাইল রিক্রুটারদের নজরে পড়বে। সেই টেকনিক গুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হল আজকের প্রতিবেদনে।

প্রফেশনাল প্রোফাইল তৈরি করার আগে মনে রাখবেন, যে দিকে কেরিয়ার এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইছেন সেদিক সম্পর্কে আপনি পুরোপুরি ওয়াকিবহাল কিনা। যদি উত্তর হ্যাঁ হয়, চোখ বুঝে নীচের টিপস গুলো মেনে চলবেন।

১। সঠিক লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে লিঙ্কডইন নেটওয়ার্কিং

প্রফেশনাল প্রোফাইলের মূল লক্ষ্য নেটওয়ার্কিং। অর্থাৎ একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ তৈরি করা। বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রফেশনাল ব্যক্তিত্বর সঙ্গে কথা বলে আমার কিছু ধারণা হয়েছে। এই ধারণা থেকে আমি বলতে পারি যে যারা সদ্য চাকরির দুনিয়ায় পা রাখছে তাদের পক্ষে এই নেটওয়ার্কিং বিষয়টা প্রাথমিকভাবে বেশ কঠিন।

এটা মাথায় রাখতে হবে শুধুমাত্র আমাদের কারিকুলাম ভিটাই যে আমাদের কোয়ালিটি ও এফিশিয়েন্সির কথা বলবে তা নয়। আমাদের যোগাযোগ করার ক্ষমতা ও নেটওয়ার্কিং-ও সাহায্য করবে আমাদের মনের মতো চাকরির সন্ধান দিতে।

একটি প্রফেশনাল প্রোফাইলে নেটওয়ার্কিং-এর প্রাথমিক ধাপ হল সম মনস্ক ও সম জীবিকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা। এই যোগাযোগ কিন্তু একেবারে প্রফেশনাল জায়গা থেকেই।

এর পরের ধাপ হল, নিজের প্রোফাইলে নিজের স্কিল সেট সম্পর্কে বিবরণ দেওয়া। প্রয়োজনে কমেন্টে আলোচনা করা। শুধু নিজের প্রোফাইলেই নয়, অন্যান্যদের প্রোফাইলেও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মতামত রাখা যেতে পারে। তবে সেই মতামত যেন একেবারেই বিষয় নির্দিষ্ট হয়।

নেটওয়ার্কিং মূলত সহযোগিতা। একে অপরের সঙ্গে নিজেদের দক্ষতা ও আইডিয়া ভাগাভাগি করে বেড়ে ওঠা।

এই যোগাযোগের সময় অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যে বয়স, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা যার যেমনই হোক না কেন।

প্রফেশনাল ক্ষেত্রে আমরা সকলে মোটামুটি একই জায়গায় অবস্থান করি। আমাদের দীন বলেছেন, আল্লাহর চোখে সকলে সমান। নেটওয়ার্কিং-এর সময় বিশেষ করে এই ব্যাপারটা মাথায় রাখতে হবে।

আমাদের পবিত্র ইসলাম ধর্মে সম্মান প্রত্যেকের প্রাপ্য, সে যে বয়সেরই হোক না কেন। মর্যাদাবান ব্যক্তিকে তার প্রাপ্য মর্যাদা দেওয়া উচিত। এটা মহানবীর শিক্ষা। এক হাদিসে হজরত রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন,

‘মানুষের সঙ্গে তাদের পদমর্যাদা অনুযায়ী আচরণ করো।’ [আবু দাউদ, হাদিস : ৪৮৪২]

২। নিজের দক্ষতা ও তথ্য লিঙ্কডইন-এ লুকিয়ে রাখবেন না

অনেকেই প্রোফাইল তৈরি করার সময় নিজের সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানাতে চান না। এটা মূলত তথ্য চুরির ভয় থেকে আসে। কিন্তু এটা মনে রাখতে হবে যে আপনি এখানে নিজের কেরিয়ার তৈরি করার চেষ্টা করছেন। তাই নিজের বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য না দিলে নিজেরই ক্ষতি। আপনার মনের মতো কোম্পানি যে দক্ষতা চায় আপনার সেটা থাকলেও শুধুমাত্র প্রোফাইলে না দেওয়ার কারণে আপনি নির্বাচিত হলেন না।

সুতরাং মনে রাখবেন, আপনার কাজ হল প্রফেশনাল প্রোফাইলটিকে আপনার কেরিয়ারের একটি জীবন্ত প্রতিচ্ছবি হিসাবে তৈরি করা। সেটি যেন আপনার পড়াশুনো , দক্ষতা ও ক্ষমতা সম্পর্কে সাক্ষ্য দেওয়ার ক্ষমতা রাখে।

অভিজ্ঞতা একজন মানুষের জীবনে আল্লাহর আশীর্বাদ স্বরূপ আসে। আল্লাহ ইরশাদ করেছেন,

‘স্মরণ কর, যখন তোমাদের প্রতিপালক ঘোষণা করেন, যদি তোমরা কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কর তাহলে আমি অবশ্যই তোমাদের জন্য (আমার নি‘য়ামাত) বৃদ্ধি করে দেব, আর যদি তোমরা অকৃতজ্ঞ হও (তবে জেনে রেখ, অকৃতজ্ঞদের জন্য) আমার শাস্তি অবশ্যই কঠিন।’ [কুরআন অধ্যায় ১৪, স্তবক ৭]

৩। লিঙ্কডইন-এ একটি স্মার্ট ও প্রফেশনাল ছবি ডিসপ্লে হিসাবে আপলোড করুন

প্রফেশনাল প্রোফাইলে ছবির গুরুত্ব কিন্তু অপরিসীম। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে ছবিহীন প্রোফাইলের থেকে ছবিযুক্ত প্রোফাইলের প্রতি রিক্রুটারদের আগ্রহ বেশি থাকে। কিন্তু সেই ছবি মানে ফুল লতা পাতা বা এমনি সাধারণ ছবি দিলে হবে না। মনে রাখবেন, প্রফেশনাল প্রোফাইল আপনার কেরিয়ারের ভিত্তি গড়ে দেয়। তাই ছবিও হতে হবে স্মার্ট ও প্রফেশনাল।

এছাড়া ছবি তোলার সময় মুখ যেন হাস্যজ্জ্বল থাকে। হাসি আমাদের ব্যক্তিত্ব ও আত্মবিশ্বাসকে ফুটিয়ে তোলে। মোদ্দা ব্যাপার, আপনার ছবি যেন আপনার সুন্দর হাস্যজ্জল ও আত্মবিশ্বাসী ব্যক্তিত্বকে ফুটিয়ে তোলে।

নবী রাসুল(সাঃ) হাসিখুশি থাকতে পছন্দ করতেন। জামিয়াত তিরিমিধি থেকে জানা যায় তিনি সর্বক্ষণ হাসিখুশি থাকতেন।

৪। লিঙ্কডইন প্রোফাইলের সমস্ত সেকশন পূর্ণ করুন

প্রফেশনাল প্রোফাইল বানানোর সময় হাতে একটু সময় নিয়ে বসুন। আগে একটি তালিকা করে নিন আপনার কী অভিজ্ঞতা ও কী দক্ষতা রয়েছে। তারপর একে একে সেই সেকশন গুলো পূর্ণ করতে থাকুন।

প্রথমে যেগুলি আসবে সেগুলি হল আপনার ছবি, আপনার বায়োডাটা ও আপনি কোথায় কর্মরত ছিলেন বা রয়েছেন।

এরপর আস্তে আস্তে আপনার অভিজ্ঞতা, কোথায় কাজ করতে চান, আপনার কী কী দক্ষতা রয়েছে এইসব সেকশন গুলো পূর্ণ করতে হবে। মনে রাখবেন, কখনও নিজের প্রোফাইলে খোলাখুলি লিখবেন না ‘চাকরির সন্ধানে রয়েছি…’ , সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে এতে চাকরি পাওয়ার সম্ভাবনা কমে।

৫। ইনমেল পরিষেবা নিতে পারেন

লিঙ্কডিনের মতো প্রফেশনাল ক্ষেত্রে ইনমেল বলে একটি পরিষেবা রয়েছে। অল্প কিছু অর্থের বিনিময়ে প্রিমিয়াম প্রোফাইল বানিয়ে নিলে এটি নেওয়া যায়। ইনমেল পরিষেবার বৈশিষ্ট্য হল যারা আপনার প্রোফাইলের সঙ্গে সংযুক্ত নয় তাদের ইনবক্সে আপনি সরাসরি মেসেজ পাঠাতে পারেন।

উদাহরণ হিসাবে বলা যায়, ধরুন কারোর কোনও বক্তব্য ভাল লাগল। আমি ইনবক্সে সেটি জানাতে পারেন। এভাবে নতুন কানেকশন তৈরি হবে। অথবা কারোর প্রোফাইলে আপনার মনের মতো কোনও কাজের অফার দেখলেন, সেটি নিয়ে সহজে আলোচনা করতে পারবেন। সে যদি আপনার আপনার সঙ্গে সংযুক্ত না থাকে তাও।

সাধারণত বিখ্যাত ব্যক্তি যা যে ব্যক্তির কানেকশনের তালিকা পূর্ণ হয়ে গিয়েছে তার সঙ্গে যোগাযোগের জন্য এই পরিষেবা গ্রহণ করা হয়।

৬। যদি স্ট্যাটিকটিক্স আপনাকে উৎসাহিত করে

যদি মুখের কথার থেকে আপনি স্ট্যাটিকটিক্স ও সংখ্যার ভক্ত হন বেশি তাহলে আপনার জন্য রইল কিছু সমীক্ষার রিপোর্ট-

সম্প্রতি হওয়া এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে ফিল্ডে সবচেয়ে বেশি নিয়োগ হয়েছে তা হল তথ্যপ্রযুক্তি ও ডেটা মাইনিং।

৯২ শতাংশ বি২বি মার্কেটিয়াররা লিঙ্কডিনকে ভীষণ ভাবে কর্মজগতের উপজীব্য করে তুলে ধরেছে, তার প্রভাব দেখা গিয়েছে সারা বিশ্বের কর্মক্ষেত্রে।

২৭ শতাংশের বেশি ব্যবহারকারী খুব সহজেই ১০০০ সঠিক মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পেরেছেন। এতে তাদের কর্মজীবনে প্রভূত লাভ হয়েছে।

এখনও পর্যন্ত ৫৭ শতাংশ পুরুষ ও ৪৪ শতাংশ মহিলা প্রফেশনাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করেন।

অতএব নিজেকে এই সংখ্যাগুলির অন্যতম হিসাবে দেখতে চাইলে আজকেই প্রফেশনাল প্রোফাইল বানানোর কাজে হাত দিন।

৭। সভ্য ও যথাযথ ভাবে সকলের সঙ্গে ব্যবহার করুন

লিঙ্কডিনে থাকার মূল লক্ষ্য নিজের কেরিয়ার সংক্রান্ত সমস্ত যোগাযোগ স্থাপন করা। সঠিক লোকের সঙ্গে যুক্ত হওয়া ও নিজের দক্ষতা বাড়ানো। সুতরাং এই প্রফেশনাল প্ল্যাটফর্মে যথাযথ ব্যবহার করতে হবে। অতরিক্ত আগ্রহ বা অতিরিক্ত চটুল কথা যেমন বলা যাবে না।

অতিরিক্ত গুটিয়ে থাকলেও চলবে না। সমমনস্ক মানুষের সঙ্গে আস্তে আস্তে সখ্য বাড়াতে হবে। প্রয়োজনে তাদের থেকে টিপস নিতে হবে। আলোচনা করতে হবে। মনে রাখবেন, কর্মক্ষেত্রের প্রফেশনাল ব্যবহার কিন্তু এখানেও কাম্য!

৮। অসাফল্যে হতাশ হবেন না

মনে রাখবেন, আল্লাহ যা করেন তার প্রত্যেকটির নির্দিষ্ট কারণ রয়েছে। আপনার কর্মজীবন কিন্তু আপনার সঙ্গে আল্লাহর যোগাযোগের অন্তরায় নয়। উলতে আল্লাহর কাছে পৌছনোর আরেক পথ।

আপনার প্রত্যেক কার্যের উপর আল্লাহর নজর রয়েছে।

তাই যদি কখনও অসাফল্য আসে তাহলে ভেঙ্গে পড়বেন না। আল্লাহ হয়তো আপনার জন্য ওই কর্মক্ষেত্রের থেকে বড় ও দায়িত্বের কর্মের নিয়ামত রেখে গিয়েছেন। আপনাকে শুধু সঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

৯। সুন্নাহের শিষ্টাচার মেনে চলুন

সুন্নাহের শিষ্টাচার মেনে চললে কর্মক্ষেত্রে ও প্রফেশনাল প্রোফাইলে আপনার উপকারের পরিসীমা থাকবে না। আল আদাব আল মুফারাদ ইরশাদ করেছেন যে মহান নবী রাসুল (সাঃ) প্রত্যুষে নিজের হস্তদ্বয়ে সুগন্ধি তৈল মর্দন করতেন। এর কারণ কারোর সঙ্গে করমর্দনে যেন সুমিষ্ট ও স্মিত অনুভূতির প্রকাশ হয়।

আবদুল্লাহ ইবনু ‘আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ

‘নবী (সাল্লাল্লাহি ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ উত্তম পথ , গাম্ভীর্যপূর্ণ উত্তম আচরণ এবং পরিমিতিবোধ নবুওয়্যাতের পঁচিশ ভাগের এক ভাগ।’

শিষ্টাচার ভাল ব্যবহার ও সঠিক শব্দের ব্যবহার আমাদের এমন একটি ব্যক্তিত্ব তৈরি করতে সাহায্য করে যা আমাদের কেরিয়ারের পক্ষে অত্যন্ত মঙ্গলজনক।