সুখ না সম্পদ: কীভাবে বাছাই করবেন

Happiness
ID 43070781 © Tomert | Dreamstime.com

মনে সুখ থাকলে সুস্থভাবে ও ভালোভাবে বেঁচে থাকা যায়। আপনার কাছে লাখ টাকা আছে, কিন্তু মনে সুখ নেই। টাকা কোন কাজেই আসল না। জীবনে চলার পথে টাকা ও সুখ দুটোই মুলত দরকার হয়।
সুখ ও শান্তি কখনও টাকা দিয়ে কেনা যায় না। সম্পদ থাকলেই মানুষ সুখী হবে এমনটি আদৌ সঠিক নয়। সম্পদ বা অর্থ থাকলেই যে মানুষ সুখী জীবন লাভ করতে পারবে- এমন ধারণা আজ সম্পূর্ণ ভুল হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। কেন না আমাদের সমাজে এমন অনেক লোক রয়েছে যাদের সম্পদের কোন অভাব নেই, কিন্তু তারা সব সময় অশান্তি ও অস্বস্তিতে জীবন কাটায়। অন্যভাবে বলা যায় যে, সম্পদ থাকলেই মানুষ সুখী হতে পারবে এমন কোন গ্যারান্টি নেই। বরং ধন সম্পদ রক্ষা করতে মানুষকে সব সময় উদ্বিগ্নতায় ভুগতে হয়। যা মানুষকে এক সময় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করতে পারে।

পবিত্র কুরআন ও হাদিসের বর্ণনা অনুযায়ী মহান আল্লাহর স্মরণ মানুষের অন্তরে সুখ ও শান্তি এনে দিতে পারে। মানুষ যখন সারা পৃথিবী থেকে হতাশ ও নিরাশ হয়ে যায়, তখন যদি সে একমাত্র সর্বশক্তিমান আল্লাহর প্রতি ভরসা ও সুদৃঢ় আস্থা রাখে, তাহলে তার অন্তরে নতুন করে আশার আলো জাগরিত হবে যা তাকে নতুন করে ঘুরে দাঁড়ানোর শিক্ষা দিবে।

সম্পদ এবং সুখ, এ দুটোকে জীবনের আরাম-আয়েশ ও শান্তির পেছনের যুগল বলা হয়। যা মানুষের জীবনের কঠোর বাস্তবতা গুলো দূরে সরিয়ে দিয়ে মানুষের জীবনে বৈশিষ্ট্যমূলক প্রভাব ফেলে। এমনকি আমরা এটাও বলতে পারি যে, সম্পদই সুখ তৈরি করে এবং এটা প্রভুর পক্ষ থেকে মানবজাতির জন্য উপহার স্বরূপ, সম্পদের ভালোবাসার আলিঙ্গনে সুখ দৃঢ় ও মজবুত হয়।
এই যেমন লোকে বলে, সম্পদই আসলে জীবন। যার টাকা আছে পৃথিবী তার হাতের মুঠোয়। টাকা থাকলে আপনি আপনার সমাজে জনপ্রিয় হবেন। সবাই আপনার কাছের মানুষ হতে চাইবে- যেহেতু সম্পদই এই পৃথিবীর বন্ধু। আপনার যা কিছু দরকার সবকিছু আপনার জন্য সহজলভ্য হবে, জীবনসঙ্গী হিসেবে একজন সুন্দরী স্ত্রী, থাকার জন্য একটি আলিশান বাড়ি এবং একটি নজরকাড়া গাড়ি এবং আরো অনেক কিছু। কিন্তু মনে সুখও তো দরকার। এসব থাকলেই যে সুখী হবেন তার কোন কারণ নেই। মনের সুখই প্রকৃত সুখ। মনের দিক থেকে সুখী না হলে আপনার যতো সম্পদ থাকুক না কেন সুখী হতে পারবেন না। তাই সুখটাই বেশী দরকার। আবার চলার পথে টাকার কোন বিকল্প নেই।

মানুষের জন্য মহান আল্লাহর অগণিত নেয়ামতসমূহের মাঝে অন্যতম একটি নেয়ামতের নাম হলো সুখ। সুখ আর শান্তি চায় না এমন মানুষ পৃথিবীতে খুঁজে পাওয়া দুষ্করই নয়, বরং অসম্ভব। সুখ আর শান্তির জন্যই এই পৃথিবীর মানুষগুলোর ছুটে চলা পৃথিবী থেকে চাঁদের দেশে এবং পাতাল থেকে মহাকাশে। পৃথিবীর মানুষের সকল চেষ্টা, সাধনা, ত্যাগ, আন্দোলন, যুদ্ধ এবং সর্বোপরি সকল কর্মই সুখ আর শান্তির আশায়। সুখ আর শান্তি অর্জন নিয়ে আজ সারা পৃথিবী ঘুরপাক খাচ্ছে। অর্থ-সম্পদ, জ্ঞান-বিজ্ঞান এবং সাধ্যের সকল সামর্থ্য নিয়ে ছুটে চলছে অবিরাম। কিন্ত সুখ আর শান্তি পৃথিবীর মানুষগুলো আসলে কি যথার্থভাবে পেয়েছে বা পাচ্ছে? বরং বর্তমান আধুনিক বিশ্বে মানুষ শিক্ষা-দীক্ষায়, অর্থ-সম্পদে যত বেশি উন্নত হচ্ছে মানসিক শান্তির গন্ডি থেকে ততই দূরে ছিটকে পড়ছে।

যখন প্রতিষ্ঠিত কোন কোম্পানির সিও কে দেখি বা দেখি প্রতিষ্ঠিত কাউকে, তখন নিজের কাছে মনে হয় কি করলাম জীবনে? কবে তাদের মত হতে পারব? কবে আমার নিজেরও অনেক বড় সড় কোন প্রতিষ্ঠান থাকবে? কবে আমারও একটা সুন্দর একটা ডুপ্লেক্স বাড়ি থাকবে? অডির নতুন গাড়িটা তো খুবি জোস, আহ! কবে আমি পৃথিবীর সব গুলো দেশ ভ্রমণ করতে পারব? এমন আরো কত লিস্ট।
সমস্যা হচ্ছে এসব কিছু পেয়ে গেলেও লিস্ট শেষ হবে না। নতুন লিস্ট আসবে। জীবনটা অসম্পুর্ণ মনে হবে। রাতে ঘুমানোর আগে মনে হবে, আহ আমার যদি ঐ জিনিসটা থাকত! আমার সিজিপিএ যদি আরেকটি ভালো হতো, আমি যদি আরেকটু ফিট হতাম, আমার স্যালারি যদি আরেকটু বেশি হতো… ইত্যাদি আরো কত কিছু।

যা কিছু নিজের নেই, তার দিকে ফোকাস করলে মন খারাপই হবে। আমাদের যা কিছু আছে, তার দিকে তাকালে মনে হবে কত শত অমূল্য সম্পদই না রয়েছে আমাদের। যে সম্পদ গুলো কিনতে পাওয়া যায় না।

রাস্তার পাশে হাত না থাকা কাউকে দেখলে নিজের হাতের দিকে তাকাই, আমার দুইটা হাত অক্ষত অবস্থায় রয়েছে। আর বেচারার তো হাতই নেই। আঙ্গুলে ছোট্ট একটা ক্ষত হলে কত কষ্ট হয়, মনে হয় ক্ষতটা না ভালো হয়ওয়া পর্যন্ত চলাই অসম্ভব, অথচ তারা মানিয়ে নিয়েছে। পা না থাকা কারো দিকে তাকালে একটুও খারাপ লাগে না? নিজের পা দুইটার জন্য শুকরিয়া জানাতে ইচ্ছে করে না? আমার করে। আর যাদের চোখ নেই, তারা কি সুন্দর দুনিয়াটা দেখতেই পায় না… আহারে। সুস্থ শরীর থাকা মানেই অনেক কিছু। যখন কেউ অসুস্থ হয়, তখন তার সকল সম্পদ থেকেও তার শরীরের চিন্তা বেশি হয়।
যেহেতু চলার পথে সুখ ও সম্পদ দুটাই দরকার আছে। সেহেতু আপনাকেই বেছে নিতে হবে আপনার কোনটা বেশী দরকার। মনে সুখ না থাকলে কোটি টাকাও কাজে আসবেনা। তাই অল্পতেই সন্তুষ্ট থাকুন, সুখী থাকুন।