হাসিনা- আ ডটার্স টেল।

সেন্স salam_admin ০২-আগস্ট-২০১৯

গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিআরআই ও অ্যাপলবক্স ফিল্মসের যৌথ প্রচেষ্টায় নির্মিত হয়েছে ডকু-ড্রামা ‘হাসিনা: আ ডটারস টেল’। দুই বছরের গবেষণা ও তিন বছরের নিরলস প্রচেষ্টায় এই ডকু-ড্রামা নির্মিত হয়েছে। সারা বিশ্বে লাখ লাখ মানুষের হৃদয় ছোঁয়ার পর, ডকু-ড্রামা – হাসিনা আ ডটার্স টেল: ২০১৮ সালে প্রকাশিত একটি মেয়ের গল্প এখন আন্তর্জাতিক শ্রোতাকে ঝড়ের মুখে নিয়ে যাচ্ছে।

হাসিনা: আ ডটারস টেল: সাউথ আফ্রিকায় ডারবান ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভালের ৪০ তম সংস্করণে এই ডকু-ড্রামাটি নির্বাচন করা হয়েছে। এছাড়াও ভারতের নতুন দিল্লির ১০ তম জাগরান চলচ্চিত্র উৎসবে স্ক্রীনিংয়ের জন্য নির্বাচিত হয়েছে।

ডকু-ড্রামাটি ২০১৯ এর ৩১ অক্টোবর এবং ৯ নভেম্বরের মধ্যে বার্সেলোনার এশিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভালে এবং ৯ সেপ্টেম্বর থেকে দক্ষিণ কোরিয়ার ডিএমজেড ইন্টারন্যাশনাল ডকুমেন্টারি ফিল্ম ফেস্টিভালে প্রদর্শিত হবে। অস্ট্রেলিয়ার ইন্ডিয়ান ফিল্ম ফেস্টিভাল অফ মেলবোর্ন (আইএফএফএম) এ ৯ থেকে ১৭ আগস্টের, ২০১৯ মধ্যে এটি প্রদর্শিত হবে।

আন্তর্জাতিক ব্যক্তিত্বের একটি দলও এতে সহযোগিতা করেছেন। উদাহরণস্বরূপ, ডকু-ড্রামাটি সাদিক আহমেদ দ্বারা সম্পাদিত হয়েছিল, এবং সম্পাদনায় ছিল নবনিতা সেন। আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত ভারতীয় সংগীত সুরকার দেবজৈতি মিশ্র, বাদ্যযন্ত্রের রচনা পরিচালনা করেন। নির্মাতা জানান, ‘হাসিনা, আ ডটারস টেল’ ডকু-ফিল্মটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৭০ মিনিট। যেখানে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও তার পরিবারের সদস্যদের দেখা যাবে। কিভাবে ১৫ই আগস্ট ১৯৭৫ এ তাঁর পিতা বঙ্গবন্ধু’র হত্যার পর থেকে জীবনে অনেক নাটকীয় পরিবর্তনের মাধ্যমে তাকে আতিক্রম করতে হয়, উঠে আসবে শেখ হাসিনার সাধারণ জীবনের অসাধারণ কিছু মুহূর্ত। যেখানে তিনি কখনো মেয়ে, কখনো মা, কখনো বোন আর কখনো আমজনতার নেত্রী হিসেবে দেখা দেবেন।

‘হাসিনা-আ ডটার্স টেল’ সামগ্রিকভাবে শুধু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গল্প নয়, তাঁর রাজনৈতিক কর্মজীবন এবং জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার একটি তথ্যচিত্র। এতে হৃদয়গ্রাহী জীববৈচিত্র্যে, একজন মেয়ে এর দৃষ্টিকোণে একটি আকর্ষণীয় অ্যাকাউন্ট, দেশের অন্ধকারের ঘন্টায় তার জীবন চিরতরে কিভাবে পরিবর্তিত ও হৃদয়গ্রাহী হয়েছে। এটা এমন একটা তথ্যচিত্র, যেটাতে নিরীক্ষা আছে। বলার ধরনে ভিন্নতা আছে। কেন এত সময় লাগল ছবিটা দেখার পর সবাই বুঝতে পারবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার বর্ণনায় এই তথ্যচিত্র এরই মধ্যে দেখা হয়ে গেছে লাখবারেরও বেশি।

সোর্সঃ https://dhakatribune.com/showtime/2019/07/24/hasina-a-daughter-s-tale-going-international